কেমন আছে পা? খুদের ভালোবাসা ছুঁয়ে গেল মমতাকে

কেমন আছে পা? খুদের ভালোবাসা ছুঁয়ে গেল মমতাকে

মমতার সঙ্গে একান্ত আলাপে খুদে অন্বেষা।

এবার সামনে থেকে দেখতে সোজা মমতার সভায় এসে হাজির সে। অণ্বেষাকে নিরাশ করেননি মমতা।

  • Share this:

#কলকাতা: কেমন আছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পা? প্লাস্টার করা, হুইল চেয়ারে বসা মমতা বন্দোপাধ্যায়কে রোজ টিভি'তে দেখত অণ্বেষা। এবার সামনে থেকে দেখতে সোজা মমতার সভায় এসে হাজির সে। অণ্বেষাকে নিরাশ করেননি মমতা। মঞ্চে ডেকে পাঠিয়ে অটোগ্রাফ দিয়েছেন।

বাঁকুড়ার কোতুলপুরের বাসিন্দা অণ্বেষা। কুলটির এক বেসরকারি ইংরাজি মাধ্যম স্কুলের ছাত্রী সে। ক্লাস ফোরের পড়ুয়া অণ্বেষা প্রতিদিন খবরের কাগজ পড়ে। প্রতিদিন নিয়ম করে নিউজ চ্যানেল দেখে। তাই নন্দীগ্রামে গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আহত হয়েছেন,তার পায়ে লেগেছে, সব খবরই ছিল তার কাছে। সে কারণেই মঙ্গলবার দুপুরে মামা আর দাদুর সঙ্গে সে চলে আসে রঘুনাথপুরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সভায়।

দুপুর ২ঃ৪৫টা নাগাদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হেলিকপ্টার অবতরণ করে রঘুনাথাপুরের হেলিপ্যাডে। তার অনেক আগে থেকেই সেখানে হাজির ছিল অণ্বেষা। কাঠফাটা রোদ উপেক্ষা করে  কেন এই প্রতীক্ষা? অন্বেষার জবাব, "উনি কেমন আছেন সেটা আমি ওনার কাছ থেকেই শুনতে চেয়েছিলাম।" মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ থেকে তা শুনতে পেরে খুশি একরত্তি মেয়ে।

এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হেলিকপ্টার থেকে নেমে হাত নাড়তে নাড়তে এগিয়ে যাচ্ছিলেন হুইল চেয়ারে চেপে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তখন তাঁর নজরে আসে একটি বাচ্চা মেয়ে তার দিকে হাত নাড়ছে। জানতে চাইছে তিনি কেমন আছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঞ্চে উঠে তাঁর নিরাপত্তারক্ষীদের বলেন ওই বাচ্চা মেয়েকে ডেকে দিতে। অণ্বেষাকে মঞ্চে ডেকে নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অণ্বেষা মঞ্চে উঠে তাঁর দাদুর লেখা একটা চিঠি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে দেয়। মমতাকে সে জিজ্ঞেস করে, পা কেমন আছে? ঠিক করে যেন ওষুধ খেয়ে নেন মমতা বন্দোপাধ্যায়, পরামর্শও দেয় খুদেটি। ধৈর্য্য ধরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কথা শোনেন অণ্বেষার। তারপর অণ্বেষাকে একটা অটোগ্রাফ দেন তার ডাইরিতে। মঞ্চে থেকে নেমে ফের হেলিকপ্টারে ওঠার সময়ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নজরে আসে অণ্বেষা ঠায় দাদু আর মামার সঙ্গে দাঁড়িয়ে আছে। ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে উদ্দেশ্য করে হাত নাড়েন। এ যেন ডবল পাওয়া। আর এতেই বেজায় খুশি ছোট্ট অণ্বেষা।

Published by:Arka Deb
First published: