Home /News /south-bengal /
Accident: শারীরশিক্ষা পরীক্ষার জন্য হাফ প্যান্ট আর গেঞ্জি না পেয়ে সপ্তম শ্রেণির ছেলে যা করল, শিউরে উঠবেন

Accident: শারীরশিক্ষা পরীক্ষার জন্য হাফ প্যান্ট আর গেঞ্জি না পেয়ে সপ্তম শ্রেণির ছেলে যা করল, শিউরে উঠবেন

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

Accident: চিকিৎসকরা রামপ্রসাদের শারীরিক পরীক্ষা করে বলেন আপাতত ভয়ের কিছু নেই।

  • Share this:

    #কাটোয়া: শারীরশিক্ষার পরীক্ষা দেওয়ার জন্য হাফ প্যাণ্ট ও গেঞ্জি না পেয়ে বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা সপ্তম শ্রেণির ছাত্রের। কাটোয়ার কোশিগ্রাম ইউনিয়ন ইন্সটিটিউশনে এই ঘটনাটি ঘটেছে। গুরুতর অসুস্থ সপ্তম শ্রেণীর পড়ুয়া রামপ্রসাদ দাসকে টোটোয় চাপিয়ে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-সহ অভিভাবকরা কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসেন। চিকিৎসকরা রামপ্রসাদের শারীরিক পরীক্ষা করে বলেন আপাতত ভয়ের কিছু নেই।

    আরও পড়ুন: চাকরি চুরির পর্দাফাঁস করেছেন, আজ থেকে নতুন দিন ববিতা সরকারের!

    হাসপাতালের বেডে বসে রামপ্রসাদ দাস বলে, আজ শারীর শিক্ষার পরীক্ষা ছিল। সব বন্ধুরা হাফ প্যাণ্ট ও গেঞ্জি পরে পরীক্ষা দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে দেখলাম। রামপ্রসাদের দাবি, বন্ধুরা বলে হাফ প্যাণ্ট ও গেঞ্জি না পরলে পরীক্ষা দেওয়া যাবে না, সেই শুনে বাড়ি এসে প্যাণ্ট ও গেঞ্জি খুঁজে পায়নি সে। পরীক্ষা দিতে পারবে না ভেবেই রামপ্রসাদ গ্রামের দোকান থেকে ইঁদুর মারার বিষ কিনে খেয়ে স্কুলের মাঠে বসে পড়ে। ঘটনার কথা জানাজানি হতেই ছাত্রদের কাছ থেকে রামপ্রসাদের বিষ খাওয়ার কথা শিক্ষকরা জানতে পারেন। বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা রামপ্রসাদের অভিভাবককে বিষ খাওয়ার খবর জানিয়ে তৎক্ষনাৎ টোটোয় চাপিয়ে হাসপাতালে নিয়ে এসে রামপ্রসাদকে ভর্তি করান হাসপাতালে।

    আরও পড়ুন: পদ্মা সেতুতে বিভোর? ভারতের এই দীর্ঘতম সেতু ধারেভারে অনেক এগিয়ে! জানলে চমকে উঠবেন!

    রামপ্রসাদের বাবা মিঠুন দাস বলেন, ছেলে আমার বাড়িতে এসে খেলার পরীক্ষার জন্য হাফ প্যান্ট গেঞ্জি খুঁজছিল। না পেয়ে ছেলে মাথা নিচু করে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যায়। হাফ প্যান্ট গেঞ্জি না পরলে যদি শিক্ষকরা বকেন বা মারেন এই ভয়ে ইঁদুর মারার বিষ খেয়েছে আমার ছেলে। কোশিগ্রাম ইউনিয়ন ইন্সটিটিউশানের শিক্ষক উত্তম মুখোপাধ্যায় বলেন, আমাদের স্কুলের পোশাক না থাকলেও তো পরীক্ষা দিতে দেওয়া হয়। আজ সপ্তম শ্রেণির সমস্ত পড়ুয়াদের শারীরশিক্ষার পরীক্ষা ছিল। রামপ্রসাদের বন্ধুরা সকলে পরীক্ষার জন্য হাফ প্যান্ট, গেঞ্জি পরে এসেছে। রামপ্রসাদ ভেবেছে তার হাফ প্যান্ট নাই তা হলে হয়ত পরীক্ষা দিতে দেবে না, এই ভুল ধারণা থেকে বিষ খেয়ে নিয়েছে। খুবই দুঃখজনক ঘটনা। আমাদের স্কুলের সকল ছাত্র সাধারণ পোশাক পরে পরীক্ষা দেয় তাতে কোন অসুবিধা নেই। আমরা ছেলেটির সঙ্গে কথা বলব। কাউন্সেলিংয়ের ব্যবস্থা করব।

    রণদেব মুখোপাধ্যায়

    Published by:Uddalak B
    First published:

    Tags: Local news

    পরবর্তী খবর