corona virus btn
corona virus btn
Loading

খন্ডঘোষে আরও ৩০ জনকে রাখা হল কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে

খন্ডঘোষে আরও ৩০ জনকে রাখা হল কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে

পূর্ব বর্ধমানের খন্ডঘোষে করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসা আরও 30 জনকে কোয়ারান্টিনে পাঠানো হল। এর আগে ওই ব্যক্তির পরিবারের চার জন সহ একত্রিশ জনকে কোয়ারান্টিন সেন্টারে পাঠানো হয়েছিল।

  • Share this:

#খন্ডকোষ: পূর্ব বর্ধমানের খন্ডঘোষে করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসা আরও 30 জনকে কোয়ারান্টিনে পাঠানো হল। এর আগে ওই ব্যক্তির পরিবারের চার জন সহ একত্রিশ জনকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছিল। পরিবারের চার জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ইতিমধ্যেই কলকাতায় পাঠানো হয়েছে। জেলা পুলিশ জানিয়েছে, আক্রান্ত ব্যক্তির গ্রাম সিল করে রাখা হয়েছে। ওই গ্রামের বাসিন্দাদের গ্রামের বাইরে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। বাইরের লোকদেরও ওই গ্রামে প্রবেশ নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

শনিবার রাতে কলকাতার মেটিয়াবুরুজ থেকে আসা ওই ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টে করোনার সংক্রমণ ধরা পড়ে। তিনি তখন বর্ধমান শহর লাগোয়া দু নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে কোভিড নাইন্টিন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। রিপোর্ট আসার পর তাঁকে দুর্গাপুরের একটি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেই রাতেই তাঁর পরিবারের চার জন সহ মোট একত্রিশ জনকে কোয়ারেন্টাইন  সেন্টারে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক জানান, আট এপ্রিল মোটর সাইকেলে কলকাতা থেকে ফেরার পর ওই ব্যক্তি অনেক মানুষের সংস্পর্শে এসেছেন। নিজের পরিবারের লোকজনদের সঙ্গে মেশার পাশাপাশি প্রতিবেশি বন্ধু বান্ধব সকলের সংস্পর্শে এসেছেন। ওই গ্রামে তাঁর শ্বশুরবাড়ি। সেখানে গিয়েছেন। আবার খন্ডঘোষের শেষ প্রান্তে আত্মীয় বাড়িতেও রাত কাটিয়েছেন। এলাকায় বাসিন্দাদের সঙ্গে মিশে বাড়ি বাড়ি গিয়ে দুঃস্হদের খাদ্য সামগ্রীও বিতরণ করেছেন। তাই এলাকায় সংক্রমণ কতটা ছড়িয়েছে তা নিয়ে চিন্তিত প্রশাসন।

জেলা স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গেছে, আক্রান্তের পরিবারের চার জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য কলকাতায় পাঠানো হয়েছে। বাকিদের শারীরিক অবস্থার ওপর নজর রাখা হচ্ছে। প্রথম দফায় একত্রিশ জনকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে পাঠানো হয়েছিল। বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহের পর আক্রান্তের সংস্পর্শে আসা আরও 30 জনকে কোয়ারান্টিন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আরও বেশ কয়েক জনকে হোম কোয়ারান্টিনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এখন আক্রান্তের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের দেহেও করোনার সংক্রমণ মেলে কিনা সেটাই দেখতে চাইছে প্রশাসন।

Published by: Akash Misra
First published: April 21, 2020, 4:26 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर