দক্ষিণবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

ফিল্মি কায়দায় কলকাতা থেকে গাড়ি ভাড়া করে এসে চালককে মারধর, তারপর গাড়ি নিয়ে পালাল ৩ দুষ্কৃতী

ফিল্মি কায়দায় কলকাতা থেকে গাড়ি ভাড়া করে এসে চালককে মারধর, তারপর গাড়ি নিয়ে পালাল ৩ দুষ্কৃতী

ড্রাইভারকে তারা বেদম মারধর করে। তারপর তার কাছ মোবাইল টাকা কেড়ে নেয় তারা। এরপর চালককে তার পোশাক দিয়ে বেঁধে রাস্তার ধারে ফেলে রেখে দুষ্কৃতীরা গাড়ি নিয়ে চলে যায়।

  • Share this:

#বর্ধমান: একেবারে যাকে বলে ফিল্মি কায়দা। সেভাবেই গাড়ি অপহরণ করল তিন দুষ্কৃতী। কলকাতা থেকে গাড়ি ভাড়া করে বর্ধমানে এসে চালককে খুন করার ভয় দেখিয়ে গাড়ি নিয়ে চম্পট দিল তারা। এই ঘটনায় জেলা জুড়ে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ ওই দুষ্কৃতীদের হদিশ পেতে তদন্ত শুরু করেছে।

গতকাল রাতে কলকাতার এসপ্লানেড থেকে একটি গাড়ি বুক করে তিন যুবক। ওই চারচাকা গাড়ির চালকের নাম খুরশিদ আলম। পূর্ব বর্ধমানের আউশগ্রামের গোবিন্দপুর যাওয়ার কথা বলে ওই গাড়িটি ভাড়া করে তিন যুবক। চালক তার, এক বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে আসতে চেয়েছিল। কিন্তু যাত্রীদের তাড়ায় সে একাই তিন যাত্রীকে নিয়ে বেরিয়ে আসে। বর্ধমানে ঢোকার মুখে শক্তিগড়ের আমড়ায় তারা জলযোগও সারে। এরপর সোজা আউশগ্রাম পৌঁছায়।

গন্তব্যে পৌঁছনোর কিছু আগে স্বমূর্তি ধরে ওই তিন দুস্কৃতি। তাদের কাছে লোডেড রিভলবার ছিল।সেই আগ্নেয়াস্ত্র মাথায় ঠেকিয়ে তারা আবার গাড়িটি বর্ধমানের দিকে নিয়ে যেতে চালককে বাধ্য করে। এরপর জাতীয় সড়কের ওপর আমবোনা মোড়ের কাছে ড্রাইভারকে তারা বেদম মারধর করে। তারপর তার কাছ মোবাইল টাকা কেড়ে নেয় তারা। এরপর চালককে তার পোশাক দিয়ে বেঁধে রাস্তার ধারে ফেলে রেখে দুষ্কৃতীরা গুসকরার দিকে গাড়ি নিয়ে চলে যায়।

সারারাত ওই অবস্থায় রাস্তার ধারে পড়ে ছিল চালক। সকালে গ্রামের বাসিন্দারা তাকে দেখতে পেয়ে ঘটনার কথা শুনে থানায় খবর দেয়। ভাতার থানার পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। আহত চালক জানান, দুষ্কৃতীরা হিন্দিভাষী। তারা নিজেদের মধ্যে হিন্দিতে কথা বলছিল।

আহত চালকের বাবা কেয়ামুদ্দিন খান জানান; তাঁরা পুলিশের কাছ থেকে খবর পেয়ে বর্ধমানে আসেন। আহত অবস্থায় ছেলে খুরশিদকে দেখতে পান তাঁরা। বন্ধু মহম্মদ সমীর জানান,কলকাতা থেকে বের হওয়ার আগে খুরশিদ তাকে সঙ্গে আসতে বলেছিল।কিন্তু ওই তিন যুবক তাড়া দেওয়ায় একাই ভাড়া নিয়ে বেরিয়ে আসে। এরপর পুলিশের কাছে খবর পেয়ে তারা এখানে আসেন।তার এই ঘটনার বিহিত চান।পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

Saradindu Ghosh

Published by: Elina Datta
First published: November 8, 2020, 7:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर