Afghan in Bengal: চোখের সামনে গুলি করছে তালিবান, হাওড়ায় বসেও ভয়ে কাঁপছে দুই একরত্তি!

দুই আফগান কন্যা

Afghan in Bengal: চোখের সামনেই মানুষকে তালিবানদের গুলিতে খুন হতে দেখেছে। দেখেছে মৃতদেহের সারি। দুই আফগান কন্যার ঠাঁই এখন হাওড়ায়।

  • Share this:

#হাওড়া: একজনের বয়স ১২ বছর, আরেক জনের বয়স মাত্র ১০ বছর | বয়েসে ছোট হলেও এই দুই একরত্তি চোখে দেখেছে তালিবানি অত্যাচার | কাবুল শহর দখল করার পর বাবা মায়ের হাত ধরে জন্ম ভিটে ছাড়ার সময় দেখেছিল মানুষকে হত্যা করতে | ছোট্ট দুই আফগান একরত্তি এখনA ঘুমোলে আঁতকে-আঁতকে ওঠে | চোখের সামনেই মানুষকে গুলি খেতে দেখেছে তারা, দেখেছে তালিবানি নৃশংসতা |

আফগানিস্তানের কাবুলের বাসিন্দা মোহম্মদ খান | কাবুল বাজারে কাপড়ের ব্যবসায়ী খান সাহেবের আস্তানা এখন এ রাজ্যের হাওড়া শহরে | দুই সন্তান ও স্ত্রী কে নিয়ে ঠাঁই হয়েছে আত্মীয়র বাড়িতে | এখনও চোখে মুখে আতঙ্ক গ্রাস করে রেখেছে তাদের | খান সাহেব জানান তালিবানিরা কাবুল দখলের পরেই সেখানকার ব্যবসায়ীদের থেকে টাকা চেয়ে হুমকি দিতে শুরু করে,  হুমকির মুখে পড়তে হয় তাঁকেও | তাঁর দাবি ২০১০ সালেও একবার হামলা করেছিল, সেই সময় তাঁকেও হামলার শিকার হতে হয়েছিল |

আরও পড়ুন: ফের আগুন জ্বলল ত্রিপুরায়, পুড়ছে CPM পার্টি অফিস! মানিকের সঙ্গে দেখা চন্দ্রিমাদের

এখনও সেই হামলার স্মৃতি তাঁর মনে দগদগে | তালিবানরা কাবুল দখলের পরে অনেক দিন সেখানে থাকলেও প্রতিনিয়ত হুমকি ও নিজের পরিবারকে তালিবানদের হাত থেকে বাঁচাতে ভারতীয় দূতাবাসে থাকা বন্ধুর সাহায্যে আজ তারা সুরক্ষিত কিন্তু এখনও বাবা মা সহ অনেকেই রয়েছেন কাবুলে | মোহম্মদ খান ছিলেন তালিবান শাসনের বিরুদ্ধে, তাই তাঁকে বার বার হুমকির মুখে পড়তে হয়েছে, আফগান সরকারের লোকেদের ও প্রতিবাদীদের রাতের অন্ধকারে হত্যার মতো ঘটনা তাঁকে দেশ ছাড়তে বাধ্য করে |

ভারতীয় দূতাবাসের সাহায্যে ভিসা জোগাড় করে স্ত্রী সন্তানকে নিয়ে ভারতের আশ্রয়ে | দুই ছোট্ট কন্যা মালালি ও পাচস্তানা জন্মভিটের দুঃস্বপ্ন নিয়েই বড় হবে এ দেশে | তাদের বাবা মা'ও চায় এখানেই তারা পাবে আসল শিক্ষা | কারণ  আফগানিস্তানে এখনও সেভাবে শিক্ষার আলো জ্বলেনি | শিক্ষার আলো পড়ার আগেই ফের তালিবানি শাসন মানেই শিক্ষার কবর খোঁড়া শুরু হয়েছে আফগানিস্তানে | মোহাম্মদ খান চান ভারত সরকার তাদের সন্তানদের শিক্ষার ব্যবস্থা করুক | মালালি আর পাচস্তানা জানে না বাংলা, না জানে হিন্দি বা ইংরেজি | তাই এ রাজ্যে থাকলেও নেই বন্ধু | তাই সারাদিন পুতুল নিয়েই কেটে যায় তাদের |

Published by:Suman Biswas
First published: