Home /News /south-bengal /

এক লাফে ১৮ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলল এখানে! আতঙ্কিত বাসিন্দারা

এক লাফে ১৮ জন করোনা আক্রান্তের হদিশ মিলল এখানে! আতঙ্কিত বাসিন্দারা

ওইসব এলাকাগুলিতে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। তার আশপাশের এলাকাকে বাফার জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।

  • Share this:

বর্ধমান: পূর্ব বর্ধমান জেলায় একদিনে করোনা আক্রান্ত হলেন  ১৮ জন।  দুপুর পর্যন্ত জেলায় আট জন করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন। রাতে আরও ১০জন বেড়ে সেই সংখ্যা ১৮য় গিয়ে পৌঁচেছে। সেই সঙ্গে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হল ৫৫ জন। এর মধ্যে শুধু মঙ্গলকোটেই ৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। কালনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ জন। মেমারিতে দু’জন, মাধবডিহি, বর্ধমান ও ভাতারে এক জন করে আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তরা প্রত্যেকেই বাইরের রাজ্য থেকে এ রাজ্যে এসেছেন।

পরিযায়ী শ্রমিকরা আসার পর থেকেই জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়েে  বাড়তে থাকায় আতঙ্কিত জেলার বাসিন্দারা।বুধবার রাতে জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক প্রণব কুমার রায় জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ১৮ জন করোনা পজিটিভ বলে রিপোর্ট মিলেছে। শুধু মঙ্গলকোটেই আক্রান্ত ৫ জন। আক্রান্তদের বেশিরভাগই ভিন রাজ্য থেকে বাড়ি ফিরেছেন। বর্ধমান শহরের কাঞ্চননগর বেলপুকুর এলাকায় এক মধ্য বয়স্ক ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।  অন্যদিকে ভাতারের কালিপাহাড়ি এলাকায় একটি দু বছরের শিশুর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। সে তার বাবা মায়ের সঙ্গে ভিন রাজ্য থেকে ফিরেছিল। ওই শিশুকে দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। তার সংস্পর্শে আসা বাকিদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

কালনার শাসপুরে দু’জনের দেহে করোনার সংক্রমণ মিলেছে।এছাড়াও কালনার নিচু জাপট এলাকায় আরও এক ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই তিনজনই বাইরের রাজ্য থেকে সম্প্রতি বাড়ি ফিরেছিলেন। বাড়ি ফেরার আগে তাদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল। করোনা আক্রান্তদের রিপোর্ট আসতেই এলাকায় পৌঁছে যায় স্বাস্থ্য দফতরের দল। ওই তিনজনকে দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ওই দুই এলাকাকে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন।

এছাড়াও মেমারির বিজরা গ্রামে দু’জনের দেহে করোনার সংক্রমণ মিলেছে। মাধবডিহি থানার আলমপুরে এক ব্যক্তির দেহে করোনার সংক্রমণ পাওয়া গিয়েছে। জেলাশাসক বিজয় ভারতী জানান, এদিন দুপুর পর্যন্ত নতুন করে ৮জন করোনা আক্রান্তের হদিস মিলেছে। তাদের প্রত্যেকে দুর্গাপুরের সনকা হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে। ওইসব এলাকাগুলিতে কন্টেইনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। তার আশপাশের এলাকাকে বাফার জোন হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের চিহ্নিত করা হচ্ছে। তাদের নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হচ্ছে। এদের সকলেই বাইরে রাজ্য থেকে এসেছেন। নতুন করে আরও কয়েক হাজার বাসিন্দা বাইরের রাজ্য থেকে আসছেন। তাঁদেরও পরীক্ষা হবে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

Tags: Burdwan, Corona positive, Corona Positive In Burdwan, Corona Virus, COVID-19

পরবর্তী খবর