Howrah Girl's Mystery Death|| প্রাক্তনের ব্ল্যাকমেল? আপত্তিকর ছবি পাঠানোয় বাড়িতে অশান্তি? হাওড়ায় ক্যারাটে খেলোয়াড়ের রহস্যমৃত্যু

আত্মঘাতী ক্যারাটে খেলোয়ার পামেলা অধিকারী।

আত্মহত্যার প্ররোচনা? প্রাক্তন প্রেমিকের ব্ল্যাকমেল? নাকি আপত্তিকর ছবি বন্ধুকে পাঠিয়েছিল, তা বাড়িতে জেনে যেতেই আত্মহত্যার সিধান্ত? বালির প্রতিভাবান ক্যারাটে খেলোয়াড় পামেলা অধিকারীর মৃত্যুতে ঘনাচ্ছে রহস্য।

  • Share this:

    #হাওড়া: আত্মহত্যার প্ররোচনা? প্রাক্তন প্রেমিকের ব্ল্যাকমেল? নাকি আপত্তিকর ছবি বন্ধুকে পাঠিয়েছিল, তা বাড়িতে জেনে যেতেই আত্মহত্যার সিধান্ত? বালির দেশবন্ধু ক্লাব এলাকার বাসিন্দা প্রতিভাবান ক্যারাটে খেলোয়াড় বছর ১৪-র পামেলা অধিকারীর মৃত্যুতে ঘনাচ্ছে রহস্য। পুলিশ ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে অষ্টম শ্রেনির পড়ুয়া পামেলার দু'টি দামী স্মার্টফোন। সেখানে তাঁর হোয়াটস অ্যাপ,  ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম এবং ইউটিউব  অ্যাকাউন্ট খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

    পামেলা অধিকারী। বাড়ি, হাওড়ার বালির দেশবন্ধু ক্লাব লাগোয়া এলাকায়। ক্যারাটে খেলোয়াড় হিসেবে যথেষ্ট নামডাক ছিল পামেলার। রাজ্যের হয়ে বিভিন্ন সময়ে প্রতিনিধিত্ব করেছে সে। শরীরচর্চা-সহ আরও বিভিন্ন খেলাধূলায় আগ্রহ ছিল।  বাড়ি ভর্তি সাজানো রয়েছে নানা পদক। রবিবার বাড়িতে নিজের ঘর থেকে পামেলার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। পামেলার বাবা-মা প্রিয়া অধিকারী এবং মলয় অধিকারীর অভিযোগ, কয়েকজন বন্ধুই পামেলাকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দিয়েছে। এমনকী, ফোনে, ফেসবুকে নিয়মিত ব্ল্যাকমেইল করা হচ্ছিলমেয়েকে, তার জেরেই আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেয় সে। যদিও প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ ব্ল্যাকমেলের কোনও তত্ত্ব পায়নি।

    পামেলা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছিল ভীষণরকম অ্যাক্টিভ, হোয়াটস অ্যাপ, ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম থেকে ইউটিউবে ছিল তার অবাধ বিচরণ। বাড়িতেও সে কথা জানতেন সকলেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা সময়ে নানা রকম ছবি, ভিডিও শেয়ার করত সে।  ফলে সেখানে তাঁর বন্ধু বা ফলোয়ারের সঙ্খ্যা কম ছিল না। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সম্প্রতি পামেলা তার এক বন্ধুকে নিজের একটি আপত্তিকর ছবি পাঠায়। কনওভাবে সে কথা তার দিদি জানতে পেরে যাওয়ায় বাড়িতে সামান্য অশান্তিও হয়েছিল। ফলে সেই অভিমান বা বাড়িতে জানাজানি হয়ে গিয়েছে, সেই ভয়ে পামেলা আত্মঘাতী হয়েছে কিনা, তা জানার চেষ্টা চলছে। সূত্রের খবর,  তদন্তকারী আধিকারকরা পামেলার মা-বাবা-দিদির সঙ্গে আলাদা আলাদা করে কথা বলতে পারে রহস্য সমাধানে।

    অন্যদিকে, তদন্তে সানি নামে যুবকের নাম উঠে এসেছে। মৃতের পরিবার সূত্রে খবর, বছর দুয়েক সানির সঙ্গে সম্পর্ক ছিল পামেলার। কিন্তু পরবর্তীকালে সেই সম্পর্ক অবশ্য ভেঙে যায়। সানির বিয়েও হয়ে গিয়েছে। অভিযোগ, প্রাক্তন প্রেমিকার কাছে বিভিন্ন ধরনের ছবি চাইত সানি। না দিলে, পামেলার আপত্তিকর ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে দেওয়ার হুমকি দিত। বাড়ির লোকেদের দাবি, দিদিকে সবটাই জানিয়েছিলেন পামেলা। সেই নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হওয়ার চিন্তাভাবনা চলছিল। তবে আদেও ঠিক কী ঘটেছিল না কেন আত্মঘাতী হল পামেলা, তার জট এখনও অব্যাহত। দেহ ময়না তদন্তে পাঠানো হয়েছে।

    Published by:Shubhagata Dey
    First published: