হোম /খবর /দক্ষিণ ২৪ পরগনা /
শীত আসতেই বাঘের আতঙ্ক জঙ্গল লাগোয়া দেউলবাড়ি গ্রামে

South  24Parganas News: শীত আসতেই বাঘের আতঙ্ক জঙ্গল লাগোয়া দেউলবাড়ি গ্রামে

X
সারানো [object Object]

শীত পরতেই বাঘের আতঙ্ক ছড়াচ্ছে জঙ্গল লাগোয়া দেউলবাড়ি গ্রামে,আর গ্রামবাসীদের সেই আতঙ্ক কাটাতে সচেতনতামূলক প্রচারের পাশাপাশি ফেন্সিং রিপিয়ারিং, টহলদারি, ফ্লোটিং ক্যাম্প, রাপিট রেসপন্স টিম তৈরি করে প্রস্তুত বনদফতর।

  • Hyperlocal
  • Last Updated :
  • Share this:

#সুন্দরবন: সুন্দরবনের কুলতলী ব্লকের দেউলবাড়ী গ্রাম যার পাশ থেকে বয়ে গিয়েছে চিতুরি খাল। আর এই খালের পাশেই রয়েছে ঘন জঙ্গল। এই জঙ্গলেই রয়েছে সুন্দরবনের রয়েল বেঙ্গল টাইগার। প্রতিবছর শীত পড়লেই চিতুরি খাল পেরিয়ে বাঘ ঢুকে পড়ে এই গ্রামে। তাই শীত পড়তেই আতঙ্কে রয়েছে গ্রামবাসীরা।

সন্ধ্যে নামলেই মাঝেমধ্যে জঙ্গল থেকে বাঘের গর্জন ভেসে আসে। বাঘের হামলায় মৃত্যু হয় গবাদি পশুর। ইতিমধ্যেই বনদফতর দেউলবাড়ী গ্রাম সংলগ্ন জঙ্গল নাইলনের জাল দিয়ে ঘিরে দিয়েছে। তবুও আতঙ্ক কাটছে না গ্রামবাসীদের।

আরও পড়ুন: South 24 Parganas News|| জয়নগরে গড়ে উঠল ল্যাবরেটরি, বিচার হবে মোয়ার গুণগত মান

গ্রামবাসীদের দাবি বাঁধের উপর যদি কোনও সোলার লাইটের ব্যবস্থা করা হয় তাহলে কিছুটা হলেও তারা নিরাপদ মনে করবেন। আর তাই শীত পড়তেই জলে-জঙ্গলে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। দফায় দফায় চেকিং করা হচ্ছে গ্রাম সংলগ্ন নদীর পাড়ের জঙ্গলে। কোথাও জাল ছেঁড়া থাকলে সঙ্গে সঙ্গে বনকর্মীরা মেরামতি করছেন।

এছাড়াও বাঘ গ্রামে ঢুকলে যাতে দ্রুত খাঁচাবন্দি করা যায় তার প্রস্তুতিও নিতে শুরু করেছে বনদফতর। সুন্দরবনের মাখরি নদীর আজমলমারী এক নম্বর জঙ্গলের ফেন্সিং এর মেরামতির কাজ করছে কুলতলি বিটের বনকর্মীরা।আর তা সরজমিনে খতিয়ে দেখতে এলেন ডিএফও মিলন মন্ডল, এডিএফও অনুরাগ চৌধুরী ও রায়দিঘি রেঞ্জের রেন্জ অফিসার সুবাহু সাহা।

আরও পড়ুন: Howrah News: ভয়াবহ আগুন হাওড়ার শ্যামপুরে! আগুনের গ্রাসে ভস্মীভূত ৯টি দোকান

এদিন ডিএফও মিলন মন্ডল জানান, ইতিমধ্যেই যে জায়গা গুলো থেকে বাঘ বার হওয়ার সম্ভাবনা বেশি, সেই জায়গাগুলো চিহ্নিত করে চারটি ফ্লোটিং ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে। পাশাপাশি গ্রামের মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে। তিনি জানান, সুন্দরবনে মোট ৬২ কিলোমিটার নাইলনের ফেন্সিং আছে। টাটা কনসাল্টটেন্সি সার্ভিসেস এর পক্ষ থেকে প্রায় ১২ কিলোমিটার ফেনসিং দেওয়ার জন্য আর্থিক সাহায্য করা হচ্ছে। যার কাজ দ্রুত শুরু হবে। গত বছর যা ক্যামেরা ট্র্যাপ লাগানো হয়েছে তাতে মনে করা হচ্ছে বাঘের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে।

যদিও সঠিক সংখ্যাটা গভর্নমেন্ট অফ ইন্ডিয়ার ডব্লু আই আই বলতে পারবে বলে জানান তিনি। এছাড়াও তিনটি স্ট্র্যাটেজিক পয়েন্টের ফ্ল্যাট সেন্টারে মজুদ করা হয়েছে প্রচুর পরিমাণে নাইলনের জাল ও বাঁশ। এছাড়াও গ্রামবাসীদের মধ্যে থেকে ১৮ জনকে স্পেশালভাবে ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে।

Published by:Anulekha Kar
First published:

Tags: Sundarban, Sundarban news