Home /News /south-24-parganas /
South 24 Paraganas: নামখানায় নিজেদের উদ‍্যোগে নদীবাঁধ মেরামত করছেন গ্রামবাসীরা

South 24 Paraganas: নামখানায় নিজেদের উদ‍্যোগে নদীবাঁধ মেরামত করছেন গ্রামবাসীরা

নদীবাঁধ

নদীবাঁধ মেরামত করছেন গ্রামবাসীরা

দক্ষিণবঙ্গে বর্ষার আগমন শুধু সময়ের অপেক্ষা। আর এর মধ‍্যে অনেক জায়গায় সারানো হয়নি নদীবাঁধ। ফলে সিঁদুরে মেঘ দেখছেন নদীবাঁধ সংলগ্ন এলাকার মানুষজন।

  • Share this:

    নামখানা: দক্ষিণবঙ্গে বর্ষার আগমন শুধু সময়ের অপেক্ষা। আর এর মধ‍্যে অনেক জায়গায় সারানো হয়নি নদীবাঁধ। ফলে সিঁদুরে মেঘ দেখছেন নদীবাঁধ সংলগ্ন এলাকার মানুষজন। অবস্থা এতটাই সঙ্গীন হয়ে পড়েছে যে নদীবাঁধ সারানোর কাজে প্রশাসনের উদ‍্যোগকে ভরসা করতে পারছেন না স্থানীয় বাসিন্দারা। সেজন‍্য তারা নিজেরাই এগিয়ে আসছেন নদীবাঁধ মেরামত করতে। একাধিক প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের জেরে বেহাল অবস্থা দক্ষিণ ২৪ পরগনার নামখানা ব্লকের মৌসুনি দ্বীপের চিনাই নদীর নদীবাঁধের। ইয়াসের সময় জলোচ্ছ্বাসে ক্ষতি হয় ১২০০ মিটার নদী বাঁধের। তারপর সরকারিভাবে বাঁধটিকে মেরামতির কাজ করা হলেও স্থানীয় গ্রামবাসীদের দাবি প্রায় এখনও পর্যন্ত ২০০ মিটার নদী বাঁধ নিঁচু হয়ে রয়েছে।

    ফলে যে কোনো মুহুর্তে নদীর জল বাড়লে প্লাবিত হতে পারে এলাকা। দীর্ঘদিন প্রশাসনের কর্তাব‍্যক্তিদের বলে কোনো কাজ হয়নি বলে অভিযোগ গ্রামবাসীদের। সেজন‍্য বর্ষার আগে প্রশাসনের উপরে আস্থা হারিয়ে বাঁধ উচুঁ করার কাজ শুরু করেছে গ্রামবাসীরা। বাঁধ লাগোয়া এলাকায় প্রায় ১০০টি পরিবারের বাস। তারা নিজেরাই চাঁদা তুলে এই বাঁধ সারানোর কাজ শুরু করে বলে খবর।

    আরও পড়ুনঃ হরিয়ানাতে কাজে গিয়ে মৃত পাথরপ্রতিমার পরিযায়ী শ্রমিক

    পাশাপাশি একটি মাটি কাটার গাড়িকেও ভাড়া করা হয়েছে বলে দাবি গ্রামবাসীদের‌। তবে স্থানীয় পঞ্চায়েত প্রধান হাসনুহানা বিবি গ্রামবাসীদের এই উদ্যোগকে চক্রান্ত হিসেবে দেখছেন। তিনি জানিয়েছেন সরকার লক্ষ‍্য লক্ষ্য টাকা খরচ করে নদীবাঁধ মেরামত করে।

    আরও পড়ুনঃ ডায়মন্ডহারবারের স্থানীয় মানুষের সমস্যার কথা শুনলেন নয়া জেলাশাসক

    গ্রামবাসীরা চাঁদা তুলে সেই কাজ করবে এটা ভাবা যায় না। এর পিছনে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রও দেখছেন তিনি। তবে পরিস্থিতি যাই হোক গ্রামবাসীদের ব‍্যক্তিগত উদ‍্যোগে এই নদীবাঁধ মেরামত নিঃসন্দেহে একটি নজির সৃষ্টি করল এলাকায় তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।

    Nawab Mallick
    First published:

    Tags: Namkhana, South 24 Parganas

    পরবর্তী খবর