Home /News /south-24-parganas /
Bangla News: দুর্গন্ধের জেরে বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের ঢাকনা খুলতেই চোখ কপালে, ভিতরে পচা লাশ!

Bangla News: দুর্গন্ধের জেরে বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের ঢাকনা খুলতেই চোখ কপালে, ভিতরে পচা লাশ!

প্রতীকী

প্রতীকী ছবি

কাকদ্বীপে ছেলের হাতে খুন হল বৃদ্ধা মা। খুনের পর দেহ সেপটিক ট‍্যাঙ্কে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ। (Bangla News)

  • Share this:

    #কাকদ্বীপ: কাকদ্বীপে ছেলের হাতে খুন হল বৃদ্ধা মা। খুনের পর প্রমাণ লোপাটের জন‍্য মায়ের মৃতদেহ সেপটিক ট‍্যাঙ্কে ফেলে পালায় ছেলে। নৃশংস এই ঘটনায় শিউরে উঠছেন স্থানীয়রা। বুধবার বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্ক থেকে বৃদ্ধার মৃতদেহ উদ্ধারের পর থমথমে পরিবেশ সমগ্র এলাকায়। এই ঘটনায় অভিযোগের আঙুল উঠেছে ওই প্রৌঢ়ার ছেলে রূপক পট্টনায়েকের বিরুদ্ধে। বুধবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার কাকদ্বীপের হারুউড পয়েন্ট কোস্টাল থানায় খবর যায় যে ওই থানার অন্তর্গত কৈলাশনগরে একটি বাড়ির সেপটিক ট‍্যাঙ্ক থেকে দুর্গন্ধ বের হচ্ছে। এই খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে পৌঁছয় হারউড পয়েন্ট কোস্টাল থানার পুলিশ। এরপর পুলিশ সেপটিক ট‍্যাঙ্কের ঢাকনা খুললে মর্মান্তিক এই দৃশ্য দেখতে পায় সকলে। বর্তমানে পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে কাকদ্বীপ মহকুমা হসপিটালের পুলিশ মর্গে ময়নাতদন্তের জন‍্য পাঠিয়েছে।

    পাড়ায় চাঞ্চল্য পাড়ায় চাঞ্চল্য

    আরও পড়ুন: উচ্চ মাধ্যমিকের রেজাল্টে রেকর্ড মেধাতালিকা, পড়ুয়াদের বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে মৃত মহিলার নাম গীতা পট্টনায়েক (৬০)। এই ঘটনায় প্রতিবেশীরা প্রৌঢ়ার ছোট ছেলে রূপক পট্টনায়েকের বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন। পুলিশ সমস্ত ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। মৃতার ছেলে রূপক পট্টনায়েক এই মুহূর্তে ঠিক কোথায় রয়েছে তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। অভিযোগ, মদ‍্যপ অবস্থায় আগেও একাধিক বার মাকে মারধর করেছিল ছেলে। রবিবার আরও একবার মায়ের সঙ্গে ঝগড়ায় জড়ায় রূপক। ওই দিন বিকেলের পর থেকে নিখোঁজ ছিলেন প্রৌঢ়া।

    আরও পড়ুন: নাতি ধরল ফোন, দাদুর অ্যাকাউন্ট থেকে নিমেষে উধাও হাজার হাজার টাকা! এই ঘটনার পর রূপককেও এলাকায় দেখতে পায়নি প্রতিবেশীরা।প্রতিবেশীরা এরপর বিভিন্ন আত্মীয়ের বাড়িতে খোঁজ নেন। কিন্তু ওই পৌড়ার কোথাও খোঁজ পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছেন প্রতিবেশীরা। বুধবার বাড়ির সেপটিক ট্যাঙ্কের পাশ থেকে দুর্গন্ধ বের হতে দেখে সন্দেহ হয় প্রতিবেশীদের। তারাই ফোন করেন থানায়। স্থানীয়দের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। এরপর পুলিশ সেপটিক ট্যাঙ্ক ভেঙে দেহ উদ্ধার করে। মর্মান্তিক এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। দোষীর উপযুক্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। নবাব মল্লিক

    First published:

    Tags: Bangla News, South 24 Pargana news

    পরবর্তী খবর