Home /News /purba-medinipur /
East Midnapore News: কোলাঘাটে হনুমানের আতঙ্কে এলাকায় কার্যত বনধের চেহারা

East Midnapore News: কোলাঘাটে হনুমানের আতঙ্কে এলাকায় কার্যত বনধের চেহারা

কোলাঘাট পুলিশ স্টেশন।

কোলাঘাট পুলিশ স্টেশন।

কোলাঘাটের গ্রামে গ্রামে হনুমানের তাণ্ডব। হনুমানের তাণ্ডবে বন্ধ স্কুল ও বাজার। হনুমানের কামড়ে আহত প্রায় ৩০ জন মানুষ।

  • Share this:

    #কোলাঘাট: কোলাঘাটের গ্রামে গ্রামে হনুমানের তাণ্ডব। হনুমানের তাণ্ডবে বন্ধ স্কুল ও বাজার। হনুমানের কামড়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে কোলাঘাট জুড়ে। হনুমানের কামড়ে আহত প্রায় ৩০ জন মানুষ। হনুমানের আতঙ্কে কার্যত ঘরবন্দি কোলাঘাটের চার-পাঁচটি গ্রামের বাসিন্দারা। শুনশান হয়ে পড়েছে রাস্তাঘাট। কোলাঘাটে চারটি স্কুল বন্ধ, বন্ধ দোকানপাট, এলাকায় অঘোষিত বন্ধের চেহারা নিয়েছে। গ্রামবাসীরা ক্ষোভ ফেটে পড়েছেন। এলাকায় পুলিশ টহল বসেছে। সাধারণ গ্রামবাসীর ক্ষোভ বন দফতরের ওপর। বন দফতর কর্মীরা এখনও পর্যন্ত হনুমান ধরতে না পারায় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসীরা।এর বিরুদ্ধে ১১৬ জাতীয় সড়ক অবরোধে করে বিক্ষোভ দেখান তারা,যার জেরে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

    পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাট থানার বাড়বহালা, পূর্ব বহালা, তাহালা গ্রামে একটি পাগল হনুমানের তাণ্ডব চলছে বেশ কয়েকদিন ধরে। পরিস্থিতি এতটাই বেগতিক যে গ্রামবাসীদের বাড়ির বাইরে বেরোতে হলে হাতে লাঠি সোটা নিয়ে বেরোতে হচ্ছে। এখনও পর্যন্ত হনুমানের কামড়ে আহত হয়েছেন প্রায় ৩০ জনের মত বলে দাবি গ্রামবাসীদের। আহতদের কোলাঘাট ব্লক হাসপাতাল ও তমলুক জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।যাদের আঘাত গুরুতর তাদের তমলুক জেলা হাসপাতাল থেকে কলকাতার পিজি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, সুযোগ পেলেই বাড়ির মধ্যে ঢুকেও তাণ্ডব চালাচ্ছে হনুমানটি। হাতে লাঠি, কাঠারি, আতশবাজি নিয়ে নিজের নিজের এলাকা পাহারা দিচ্ছেন গ্রামের যুবকেরা। কর্মজীবীদের গৃহবন্দি হয়ে সময় কাটাতে হচ্ছে। গৃহবন্দী হতে হয়েছে স্কুল ছাত্র ছাত্রীদেরও ।

    আরও পড়ুন: আইএফএ-এর অধীনে নার্সারি খেলার জন্য ফুটবল ট্রায়াল তমলুকে

    আরও পড়ুন: সরকারি নির্দেশে শিল্পাঞ্চলের কারখানা গুলিতে জেলা প্রশাসনের নজরদারি

    সাধারণ মানুষের ক্ষোভ গিয়ে পড়েছে বন দফতরের ওপর। বন দফতর সূত্রে জানা যায় কোলাঘাটে গ্রামে গ্রামে তাণ্ডব চালানো হনুমানটিকে ধরার চেষ্টা শুরু হয়েছে। বন দফতরের কর্মীরা জাল পেতে এমনকি কলার লোভ দেখিয়েও হনুমানটিকে আয়ত্তে আনতে পারেনি। এই প্রসঙ্গে জেলা বন আধিকারিক অনুপম খান জানান, 'একটি হনুমানের দল একসঙ্গে রয়েছে এই এলাকায়।দলে মোট আটটি হনুমান রয়েছে। ওই দলটির মধ্যে থেকেই একটি হনুমান যে কারণেই হোক হঠাৎ করে।মানুষকে আক্রমণ করছে গ্রামে গ্রামে। অবশ্য সেই হনুমানটিকে চিহ্নিত করা হয়েছে।তাকে ধরার সমস্ত রকম প্রয়াস জারি আছে। হনুমান ধরার জন্য খড়গপুর থেকে বিশেষ টিম নিয়ে আসা হয়েছে। শীঘ্রই হনুমানটিকে খাঁচা বন্দি করা যাবে আশা করা যায়।'

    Saikat Shee

    Published by:Ananya Chakraborty
    First published:

    Tags: Purba medinipur, Tamluk

    পরবর্তী খবর