বাজারে টুনি, লেজারের রমরমায় পিছিয়ে পড়ছে মাটির প্রদীপ

বাজারে টুনি, লেজারে রমরমায় পিছিয়ে পড়ছে মাটির প্রদীপ। ফলে একসময় যাদের জন্য আলোয় ভরে উঠত দীপাবলি, আজ তাঁরাই রয়ে গিয়েছেন অন্ধকারে।

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Oct 15, 2017 07:31 PM IST
বাজারে টুনি, লেজারের রমরমায় পিছিয়ে পড়ছে মাটির প্রদীপ
Diwali Diya
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Oct 15, 2017 07:31 PM IST

#কলকাতা: বাজারে টুনি, লেজারে রমরমায় পিছিয়ে পড়ছে মাটির প্রদীপ। ফলে একসময় যাদের জন্য আলোয় ভরে উঠত দীপাবলি, আজ তাঁরাই রয়ে গিয়েছেন অন্ধকারে। চাহিদা তলানিতে এসে ঠেকলেও একরকম পেশার টানেই প্রদীপ তৈরি করছেন হাওড়ার উলুবেড়িয়ার কয়েকশো পরিবার। যদিও পুরুলিয়ার মৃৎশিল্পীরা শোনাচ্ছেন আশার কথা।

পালপাড়া, বাগান্ডা, কাঁটাখালি। উলুবেড়িয়ার এইসব গ্রামের মানুষগুলির এখন নাওয়া-খাওয়া ভুলে যাওয়ার অবস্থা। কালীপুজোর যে আর এক সপ্তাহও বাকি নেই। মাটি মাখা হাতে সবাই মুখ থুবড়ে পড়ে আছেন প্রদীপ তৈরির কাজে। কিন্তু যাদের তৈরি প্রদীপে ভরে উঠবে আলো, তাঁরাই যে থেকে গিয়েছেন অন্ধকারে। সৌজন্যে চায়না আলোর রমরমা বাজার। যে কারণে দিনে দিনেই কমছে মাটির প্রদীপের চাহিদা।

গ্রামের প্রায় আড়াইশো পরিবার, এই প্রদীপ তৈরির কাজের সঙ্গেই জড়িত। কিন্তু যত দিন যাচ্ছে ততই মার খাচ্ছে প্রদীপ শিল্প। তাই আগামী প্রজন্মকে এই কাজে আনতে চাইছেন না অনেকে।

উলুবেড়িয়ার উলটো ছবি পুরুলিয়ায়। কোটলই গ্রামের কুমোরপাড়াতেও ব্যস্ততার ছবির মধ্যে কোনও ফারাক নেই। তবে মৃৎশিল্পীদের চোখে মুখে আছে আনন্দ। কারণ তাঁরা মনে করেন, চায়না লাইট ছেড়ে মানুষ ফিরে আসছে প্রদীপের কাছেই। ফলে চাহিদা যেমন বাড়ছে, তেমনি মিলছে দামও।

অন্ধকার থেকে আলোয় ফিরেছেন পুরুলিয়ার মৃৎশিল্পীরা। তাঁদেরও হয়ত একদিন এভাবেই অন্ধকার ঘুচবে। আশায় উলুবেড়িয়ার মৃৎশিল্পীরা।

First published: 07:31:57 PM Oct 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर