এই গ্রামের কোনও বাড়িতে কেন মা কালীর ছবি নেই জানেন ?

কালী পুজো। তার সঙ্গে কোথাও যেন মিশে রয়েছে হাড়হিম করা ডাকাতদের কাহিনী। সিঙ্গুরের ডাকাতে কালী মন্দির সেরকমই একটি মিথ।

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Oct 18, 2017 10:25 AM IST
এই গ্রামের কোনও বাড়িতে কেন মা কালীর ছবি নেই জানেন ?
নিজস্ব চিত্র
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Oct 18, 2017 10:25 AM IST

#সিঙ্গুর: কালী পুজো। তার সঙ্গে কোথাও যেন মিশে রয়েছে হাড়হিম করা ডাকাতদের কাহিনী। সিঙ্গুরের ডাকাতে কালী মন্দির সেরকমই একটি মিথ। স্থানীয়রা এই ডাকাত কালীকে এতটাই জাগ্রত বলে মনে করেন যে আশেপাশের তিনটি গ্রামে হয় না কোনও কালী পুজো। মূর্তি তো দূরের কথা গ্রামের কোনও বাড়িতে মা কালীর ছবি লাগানো ক্যালেন্ডারও টাঙানো হয় না।

কথিত আছে প্রায় ৫০০ বছর আগে প্রতিষ্ঠা হয় সিঙ্গুরের ডাকাতে কালী মন্দিরের। বৈদ্যবাটী-তারকেশ্বর রোডের পাশে পুরুষোত্তমপুর এলাকায় রয়েছে এই ডাকাতে কালী মন্দির। অসুস্থ ঠাকুর রামকৃষ্ণকে দেখতে মা সারদা কামারপুকুর থেকে দক্ষিণেশ্বর যাচ্ছিলেন। সেই সময় রঘু ও গগন ডাকাত মায়ের পথ আটকে দাঁড়ায় ডাকাতির উদ্দেশ্যে। সেই সময় মায়ের মুখ দেখতে পায় ডাকাতরা। ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা চায় মা সারদার কাছে। রাতে মা সারদাকে খেতে দেওয়া হয় চাল ও কড়াই ভাজা। সেই থেকে মায়ের প্রসাদ হিসেবে চাল-কড়াই ভাজাই দেওয়া হয়।

কালী পুজোর দিন বলি হয় এখানে। ডাকাতে কালী মন্দির ছাড়া মল্লিকপুর, জামিনবেড়িয়া ও পুরসোত্তমপুর এলাকায় হয় না কোনও কালী পুজো। এমনকী গ্রামের কারোর বাড়িতে নেই কোনও কালী মূর্তিও। মা কালীর ছবি লাগানো ক্যালেন্ডার লাগানোরও সাহস পান না স্থানীয়রা। এতটাই জাগ্রত সিঙ্গুরের ডাকাত কালী মন্দির।

ডাকাতরা চলে যাওয়ার পর চালকেবাটি গ্রামের মোড়লরাই এই মন্দিরটি প্রতিষ্ঠা করেন। তাই কালী পুজোর দিন মোড়লদের পুজোর পর অন্য ভক্তদের পুজো হয়।

First published: 10:23:04 AM Oct 18, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर