২৫ হাজারে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ থেকে শিশু বিক্রি, ৩ বছর বাদে তাকে ফিরে পেলেন মা

২৫ হাজারে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ থেকে শিশু বিক্রি, ৩ বছর বাদে তাকে ফিরে পেলেন মা
representative image
  • Share this:

#মালদহ: তিন বছর আগে হারিয়ে গিয়েছিল সদ্যোজাত শিশু। অবশেষে তাকে ফিরে পেলেন মা!

২০১৬ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি ! মালদহ থানার ধুমাদিঘির বাসিন্দা সোনামনি কিস্কু মালদহ মেডিক্যাল কলেজে এক কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। জন্মের পর আলাদা কেবিনে ছিলেন মা ও শিশু। তিনদিনের মাথায় ১৫ ফেব্রুয়ারি হাসপাতাল থেকে ছুটি দেওয়া হয় সোনামনিকে কিন্তু ভোজবাজির মতো উধাও হয়ে যায় সদ্যোজাত শিশু।

ঘটনায় একযোগে তদন্তে নামে মালদহ থানা, ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। খবর মেলে, হবিবপুরের শেফালি মুর্মুর কাছে শিশুটি রয়েছে। কিন্তু পরিবার পৌঁছতেই শিশু নিয়ে গা ঢাকা দেন শেফালি মুর্মু। এরপর থেকেই তাঁর খোঁজ চলছিল। শেষ পর্যন্ত ঘটনার প্রায় তিন বছর পর, দক্ষিন দিনাজপুরে খোঁজ মেলে চুরি যাওয়া শিশু এবং শেফালির।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শিশু ও শেফালি মুর্মুকে আনা হয় ইংরেজবাজার থানায়। চোরাই শিশু নেওয়ার কথা স্বীকার করেছেন ওই মহিলা। জানা গিয়েছে, পঁচিশ হাজার টাকার বিনিময়ে মালদহ মেডিক্যাল কলেজের এক আয়ার থেকে ওই শিশুটিকে কিনেছিলেন শেফালি। পুলিশ তাঁকে গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুন-এখনও অধরা চিতাবাঘ ‘সচিন'

First published: January 4, 2019, 12:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर