Football World Cup 2018

ট্রেনে অসুস্থ হয়ে পড়া মানেই কি মৃত্যু? ফের প্রশ্নের মুখে রেলের যাত্রী পরিষেবা

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Dec 15, 2017 12:58 PM IST
ট্রেনে অসুস্থ হয়ে পড়া মানেই কি মৃত্যু? ফের প্রশ্নের মুখে রেলের যাত্রী পরিষেবা
নিজস্ব চিত্র
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Dec 15, 2017 12:58 PM IST

#কলকাতা: এক সপ্তাহের মধ্যে চার-চারটি মৃত্যু। কখনও ট্রেনে, কখনও স্টেশনে। আসানসোলের পর ব্যান্ডেল। আবারও ট্রেনে অসুস্থ হয়ে যাত্রীর মৃত্যু। হাওড়ার শালিমার স্টেশনে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু ভিনরাজ্যের মহিলা যাত্রীর। মুর্শিদাবাদে ট্রেনে উদ্ধার মহিলার দেহ। ট্রেনে অসুস্থ হয়ে পড়া মানেই কি মৃত্যু? ফের প্রশ্নের মুখে রেলের যাত্রী পরিষেবা।

পাঁচ দিনও পেরোয়নি। বিনা চিকিৎসায় ফের ট্রেনযাত্রীর মৃত্যু।

বৃহস্পতিবার রাতে নিউ ফরাক্কা স্টেশনে ডাউন কাটিহার এক্সপ্রেসে অচৈতন্য অবস্থায় উদ্ধার করা হয় এক মহিলাকে। খবর পাওয়া মাত্রই মহিলাকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। যদিও এখানে রেলের একাংশের বিরুদ্ধেই আঙুল তুললেন স্টেশন মাস্টার। মালদহেই মহিলার চিকিৎসার ব্যবস্থা করা উচিত ছিল বলে মনে করেন তিনি।

এর আগে বুধবার রাতে চিকিৎসা না পেয়ে শালিমার স্টেশনেই মৃত্যু হয় চেন্নাইয়ের এই বাসিন্দার। ট্রেন ধরতে স্টেশনে যান শাকিলা খাতুন। অভিযোগ, তাঁর অসুস্থতার কথা জানাতে গেলেও গুরুত্ব দেয়নি আরপিএফ।

বুধবার রাতে ডাউন গঙ্গাসাগর এক্সপ্রেসে বিহারের বেঘুসরাই থেকে ফিরছিলেন ৪১ বছরের হায়দার আলি। ট্রেনে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। ব্যান্ডেল স্টেশনে চিকিৎসক হায়দার আলিকে মৃত ঘোষণা করেন।

গত শনিবার আপ মিথিলা এক্সপ্রেসে একইভাবে অসুস্থ হয়ে মৃত্যু হয় মহম্মদ কারামতের। বাবার চিকিৎসার জন্য ছেলের আকুতিমিনতিতেও কান দেয়নি রেলের কেউ। দীর্ঘ ১৭ ঘণ্টা আসানসোল জংশনেই পড়ে থাকে দেহ।

নিউ ফরাক্কায় রেলের অন্য ভূমিকা দেখা গেলেও, রাজ্যের বাকি তিন স্টেশনে ঘটনা প্রশ্ন তুলেই দিল। ট্রেনে অসুস্থ হওয়ার পরিণতিই কি মৃত্যু?

First published: 12:58:17 PM Dec 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर