Home /News /off-beat /
Viral News: প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে হলুদ ইটের রাস্তার সন্ধান, এ যেন ‘আটলান্টিসে’ যাওয়ার পথ! ভিডিও ভাবিয়ে তুলবে

Viral News: প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে হলুদ ইটের রাস্তার সন্ধান, এ যেন ‘আটলান্টিসে’ যাওয়ার পথ! ভিডিও ভাবিয়ে তুলবে

প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে হলুদ ইটের রাস্তার সন্ধান, এ যেন ‘আটলান্টিসে’ যাওয়ার পথ! ভিডিও ভাবিয়ে তুলবে

প্রশান্ত মহাসাগরের গভীরে হলুদ ইটের রাস্তার সন্ধান, এ যেন ‘আটলান্টিসে’ যাওয়ার পথ! ভিডিও ভাবিয়ে তুলবে

আপাতদৃষ্টিতে মনে হবে যে, কোনও এক সময় হাঁটা-চলার জন্যই ব্যবহার করা হত ওই রাস্তা। কিন্তু সত্যিই কি তা-ই? ফলে সমুদ্রের গভীরে ওই রাস্তাই রহস্য এখন ছড়িয়ে দিয়েছে সমুদ্রবিজ্ঞানীদের মনে।

  • Share this:

চারপাশে ঘন নীল জলের হাতছানি। সেই অতল গভীরে আচমকাই দেখা মিলল অদ্ভুত এক রাস্তার! দেখে হলুদ রঙের ইট দিয়ে বাঁধানো রাস্তা বলে ঠাহর হয়! আপাতদৃষ্টিতে মনে হবে যে, কোনও এক সময় হাঁটা-চলার জন্যই ব্যবহার করা হত ওই রাস্তা। কিন্তু সত্যিই কি তা-ই? ফলে সমুদ্রের গভীরে ওই রাস্তাই রহস্য এখন ছড়িয়ে দিয়েছে সমুদ্রবিজ্ঞানীদের মনে।

সূত্রের খবর, প্রশান্ত মহাসাগরের একেবারে তলদেশে ওই ইটে বাঁধানো রাস্তার সন্ধান পেয়েছেন এক্সপ্লোরেশন ভেসেল নটিলাসের (Exploration Vessel Nautilus) গবেষকেরা। সম্প্রতি তাঁরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রশান্ত মহাসাগরের (Pacific Ocean) পাপাহানাওমোক্যুয়াকিয়া মেরিন ন্যাশনাল মনুমেন্টের (Papahānaumokuakea Marine National Monument) লিলিউওকানি রিজ (Liliʻuokalani Ridge) অঞ্চলের উপর গবেষণা চালাতে শুরু করেন। সেই সময় হঠাৎ করেই সেখানে অদ্ভুত ধরনের গঠন লক্ষ্য করে ওই গবেষক দলটি। পাথুরে ওই এলাকায় কবলস্টোন বা খোয়া-পাথরের তৈরি রাস্তার সৃদশ একটি পথ নজরে আসে। আর তা দেখেই এক গবেষক মজা করে বলে ওঠেন, ‘এই ইটের রাস্তা দিয়েই বোধহয় আটলান্টিসে পৌঁছে যাওয়া যাবে’। আবার আর এক গবেষককে বলতে শোনা গিয়েছে, ‘অদ্ভুত’।

আরও পড়ুন-আনিস খান মামলায় ‘সিভিক’ আক্ষেপ রাজ্যের এজি-র

সমুদ্রবিজ্ঞানীদের ওই দলটি জানিয়েছে যে, সমুদ্রের গভীরে অগ্ন্যুৎপাতের জেরে গজিয়ে ওঠা পর্বত সদৃশ গঠন বা সি-মাউন্টের (Seamount) উপর গবেষণা চালানো হচ্ছিল। আসলে মধ্য ও পশ্চিম প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে এমন বহু পর্বত সদৃশ গঠনের উৎপত্তি কীভাবে, তা স্পষ্ট ভাবে বোঝা যাচ্ছে না। সেই গবেষণা চলাকালীন আচমকাই আয়তাকার ইট দিয়ে তৈরি রাস্তার দেখা মেলে। প্রাথমিক ভাবে যেটাকে দেখে মানুষের তৈরি বলেই ভ্রম হয়! কিন্তু আদৌ এই ধারণা কি সঠিক? এই প্রসঙ্গে বিজ্ঞানীদের বিশ্লেষণ, বিষয়টা আপাতদৃষ্টিতে যা মনে হচ্ছে, সেটা নয়। আসলে এই পাথুরে রাস্তা সদৃশ গঠনটিকে সক্রিয় আগ্নেয়গিরি সংক্রান্ত ভৌগোলিক উদাহরণ হিসেবেই ধরা যেতে পারে। গবেষণার এই ভিডিওটি ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছে এবং তার ক্যাপশনে বলা হয়েছে যে, নুটকা সি-মাউন্টের (Nootka Seamount) শিখরে গবেষক দলটি একটি শুষ্ক হ্রদের তলদেশের হদিশ পেয়েছে। তাতে লাভা উদগীরণের ফলে তৈরি হওয়া হায়ালোক্ল্যাস্টিট পাথর (Hyaloclastite Rock) চারপাশে ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকী, পাথরের ভাঙা টুকরোও সমুদ্রের তলদেশে ইতিউতি ছড়িয়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে।

আরও পড়ুন-বিছানায় পুরুষদের যৌন উদ্যম তুঙ্গে রাখবে এই সবজি, রইল এর গুণাগুণের তালিকা

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে এই রাস্তার পাথরের খোয়া-পাথরের মতো এমন অদ্ভুত গঠন কী কারণে? এ নিয়ে বিজ্ঞানীদের ব্যাখ্যা, আসলে অগ্ন্যুৎপাতে লাভা উদগীরণের সময় ক্রমাগত গরম আর ঠান্ডা হওয়ার কারণে বহু সময় ধরে ওই পাথরগুলি খোয়া-পাথরের আকার ধারণ করেছে। সেই সঙ্গে বিজ্ঞানীরা আরও জানিয়েছেন, ওই এলাকা নিয়ে তাঁরা আগে কখনওই গবেষণা করেননি। এবার তাই সেখানকার প্রাচীন সিমাউন্টের পাথুরে বিন্যাস নিয়ে আরও ভাল ভাবে গবেষণা চালাবেন তাঁরা।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published:

Tags: Viral News

পরবর্তী খবর