সঙ্কটমোচন হনুমানের পুজো করুন এইভাবে, সফল হতে বেশি সময় লাগবে না

প্রতীকী ছবি ৷

  • Share this:

    #কলকাতা: হিন্দুশাস্ত্রে তেত্রিশ কোটি দেব-দেবীর কথা উল্লেখ আছে। আর এই প্রত্যেক দেব-দেবীর আরাধনার একটি নির্দিষ্ট তিথি রয়েছে। আমাদের সপ্তাহের প্রত্যেকটি দিনই কোন না কোন দেব-দেবীর পূজার কথা উল্লেখ আছে। তেমনি মঙ্গলবার হিন্দু শাস্ত্রে হনুমানজির পূজোর কথা উল্লেখ আছে। মঙ্গলবার হনুমানজির পুজো করলে পারিবারিক অশান্তি দূর হবে। পরিবারের উপর কুদৃষ্টি পড়বে না। মঙ্গলবার হনুমানজির পুজো করা হয়, কারণ মঙ্গলবার হনুমানজি জন্মেছিলেন, তাই সপ্তাহের এই দিন হনুমানজির পুজো করার উপযুক্ত সময়।

    শনিবারও হনুমানজির পুজো করা যায়। এই নিয়ে শাস্ত্রে একটি বাখ্যা রয়েছে – যখন লঙ্কা অধিপতি রাবণ নবগ্রহকে বন্দি করেছিলেন তখন হনুমানজি ওই সময় সীতাকে উদ্ধারের জন্য লঙ্কায় ছিলেন। হনুমান নবগ্রহকে উদ্ধার করেন আর নবগ্রহের মধ্যে শনিদেব হনুমান কে আশীর্বাদ দেন যে হনুমানদেব তাঁর ভক্তের উপর কোনওদিন শনি দেবের কুদৃষ্টি পড়বে না। তাই শনিবার হনুমানজির পুজো করা হয়।

    হনুমানজির পুজোর জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ: পুজোর আগে হনুমানজির মুর্তির সামনে প্রদীপ, ধুপ, কলা, জল, সিন্দুর, লাল কাপড় রাখতে হবে। শাস্ত্র মতে লাল কাপড় পরিহিত হনুমানজির মূর্তি বেজায় শুভ তাই হনুমানজির উদ্দেশে লাল কাপড় নিবেদন করা হয়।

    হনুমানজীর পুজোর পদ্ধতিঃ পূজার জায়গাটি ভালৃ করে পরিষ্কার করে লাল কাপড়ের উপর হনুমানজির মূর্তি বা ছবি রাখুন। পুজোর আগে হনুমানজির মূর্তিটি ভালো ভাবে ধুয়ে নিন। ঠাকুরের সামনে ধূপ ও প্রদীপ জ্বালিয়ে দিন। হনুমানজির গলায় মালা পরিয়ে দিন। হনুমান চল্লিশা পাঠ করতে পারেন। হনুমানজির উদ্দেশে পাঁচটি কলা দান করতে ভুল করবেন না। কারণ এই ফলটি হনুমানজির খুব প্রিয়। হনুমানজির পুজো করলে কী কী উপকার হয় তা নীচে আলোচনা করা হল…

    ১) প্রতি মঙ্গলবার স্নান করে হনুমানজির পুজো করলে ও হনুমান চল্লিশা পাঠ করলে মনের মধ্যে থাকা ভয় দূর হবে। এর ফলে আপনি সমস্ত বাধা অতিক্রম করতে পারবেন।

    ২) প্রতি মঙ্গলবার হনুমানজির পুজো করলে পরিবারের ধন-সম্পদের অভাব হয় না।

    ৩) নিয়ম করে হনুমানজির পুজো করলে আপনার মনের ইচ্ছাপূরণ হয় এবং আপনি মনের মত চাকরি পেতে পারেন।

    ৪) হনুমানজির পুজো করলে আপনার বুদ্ধির ধার বাড়বে। আপনি সহজেই সবকিছু জয় করতে পারবেন।

    First published: