বিয়ে করতে এসে গ্রেফতার বর, পালালেন বাবা-মাও!

বিয়ে করতে এসে গ্রেফতার বর, পালালেন বাবা-মাও!

সেই বিয়েতে রুখে দাড়ালেন দাদা। খবর পেয়ে বিয়ের আসরে হানা পুলিশের গ্রেফতার করা হল বরকে।

  • Share this:

#মালদহ: বোনের বিয়ে দিতে উদ্যোগ নিয়েছিলেন বাবা মা। সেই  বিয়েতে রুখে দাড়ালেন দাদা। খবর পেয়ে বিয়ের আসরে হানা পুলিশের গ্রেপ্তার করা হল বরকে। আর এই পুলিশি অভিযান টের পেয়ে উধাও বাবা মা। ঘটনা মালদহের রতুয়া থানার কাঞ্চননগর গ্রামে।

বিয়ের আসর থেকে উদ্ধার করে ওই মেয়েকে পাঠানো হয়েছে সরকারি হোমে। এখনও বয়স ১৮ পার করেনি৷ তাঁর অমতে জোর করে বিয়ে দেওয়া হচ্ছিল বলে অভিযোগ তুলেছে বছর ১৪  ওই নাবালিকা। ঘটনার প্রতিবাদে সরব হন স্থানীয় বাসিন্দারাও। জানা গিয়েছে, রতুয়ার হাই মাদ্রাসার দশম শ্রেনীর ছাত্রীর সোমবার বিয়ের অনুষ্ঠান হচ্ছিল। দুপুর নাগাদ বিয়ে বাড়িতে হাজির হয় সামসী গ্রাম পঞ্চায়েতের বান্ধাকুড়ি গ্রামের যুবক আনোয়ারুল হক। বাবা মা একতরফা ভাবে বিয়ের ব্যবস্থা করায় গোটা ঘটনা জানিয়ে রতুয়া থানা পুলিশের দ্বারস্থ হয় ওই নাবালিকার দাদা। এরপরেই রতুয়া থানার ওসি কুনাল দাসের নেতৃত্বে পুলিশ বিয়ের আসরে হাজির হয়। ওই নাবালিকা পুলিশকে জানায় বিয়েতে সেও রাজি নয়।

এরপরেই নাবালিকা বিয়ের চেষ্টার অভিযোগে বর আনোয়ারুলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। জানা গিয়েছে এর আগেও ওই পরিবারে নাবালিকা অবস্থাতেই আরও দুই মেয়ের বিয়ে দিয়ে দেওয়া হয়। গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে রতুয়া থানার পুলিশ। তবে বিয়ের কাজী আর বাবা মা ঘটনার পর থেকে গা ঢাকা দিয়েছে।

First published: March 9, 2020, 8:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर