corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাতে টাকা নেই, রোজগারের আশাও নেই, পায়ে হেঁটেই উত্তর থেকে দক্ষিণ পৌঁছচ্ছেন দিনমজুররা

হাতে টাকা নেই, রোজগারের আশাও নেই, পায়ে হেঁটেই উত্তর থেকে দক্ষিণ পৌঁছচ্ছেন দিনমজুররা

পায়ে হেঁটেই প্রায় ৩০০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে পৌঁছান রায়গঞ্জে। খাবার রসদ ফুরিয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েই পায়ে হেঁটেই পরিবারের কাছে ফিরে যাচ্ছেন বলে জানান ভিনরাজ্যের শ্রমিকেরা।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: আর অপেক্ষা নয় এবার পায়ে হেঁটেই ৬০০ কিলোমিটার দূরের বাড়ির পথে ভিনরাজ্যের শ্রমিকেরা।  এমনই ছবি ধরা পরল উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ,  ইসলামপুর,  ডালখোলা ও ইটাহার থানা এলাকায়। বীরভূমের নলহাটি এলাকার জনা পঞ্চাশেক মানুষ ৬০০ কিলোমিটার দূরে বিহারের মধুবনীতে শ্রমিকের কাজে গিয়েছিলেন। লক ডাউনের জেরে আটকে পড়েন তারা। রোজগারের যা কিছু অর্থ ছিল তা প্রায় শেষের পথে। কবে লকডাউন খুলবে কবেই বা গণপরিবহন ব্যাবস্থা চালু হবে তার অপেক্ষা না করে বিহারের মধুবনী থেকে পায়ে হেঁটেই বীরভূমের নলহাটির উদ্দেশ্যে রওনা হয় ওই শ্রমিকের দল। পায়ে হেঁটেই প্রায় ৩০০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে পৌঁছান রায়গঞ্জে। খাবার রসদ ফুরিয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েই পায়ে হেঁটেই পরিবারের কাছে ফিরে যাচ্ছেন বলে জানান ভিনরাজ্যের শ্রমিকেরা।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে গত ২৫ মার্চ থেকে দেশজুড়ে লক ডাউন শুরু হয়েছে। লকডাউনের জেরে দেশের বিভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়েছেন ভিনরাজ্যের শ্রমিকেরা।  বিভিন্ন সময় ভিডিও বার্তার মাধ্যমে আত্মীয় পরিজন শুভানুধ্যায়ীদের তাদের পরিস্থিতির কথা ব্যাক্ত করলেও কোনও সুরাহা হয়নি। ভিনরাজ্যে আটকে পড়ে প্রায় অনাহার অর্দ্ধাহারে দিন  কাটছে তাদের। এমতাবস্থায় লক ডাউন খোলার অপেক্ষা করলে তাদের না খেতে পেয়েই মরতে হবে। আর সেজন্যই লক ডাউন খোলার অপেক্ষায় না থেকে বাধ্য হয়ে পায়ে হেঁটেই শয়ে শয়ে কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে বাড়ি ফেরার চেষ্টা করছেন ভিনরাজ্যের শ্রমিকেরা।

এমনই একদল শ্রমিকের দেখা মিলল রায়গঞ্জ শহরের সোহারই মোড়ে। বীরভূমের নলহাটির বাসিন্দারা ভিনরাজ্যের শ্রমিকের কাজ নিয়ে গিয়েছিলেন বিহার রাজ্যের মধুবনী এলাকায়। লক ডাউনে আটকে পড়েন তারা। তাদের সাথে রয়েছে আট বছরের এক শিশুও। ওই শিশুকে কখনও কখনও ঘাড়ে নিয়ে কখনও বা  পায়ে হাঁটিয়ে মঙ্গলবার তারা প্রায় ৩০০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে জাতীয় সড়ক ধরে এসে পৌঁছেছেন রায়গঞ্জে। আরও প্রায় ৩০০ কিলোমিটার পথ বাকি তাদের বাড়ি পৌঁছাতে। এভাবেই কোথাও একটু পথেই বিশ্রাম নিয়ে আবারও পথ চলা শুরু করছেন তারা। তাদের কথায় কোনও উপায় নেই যেভাবেই হোক বাড়িতে পরিবারের কাছে ফিরতেই হবে।

Published by: Pooja Basu
First published: March 31, 2020, 2:13 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर