উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

শিলিগুড়িতে আটকে পড়া শ্রমিক, কর্মীদের ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু, ফিরছেন পর্যটকেরাও

শিলিগুড়িতে আটকে পড়া শ্রমিক, কর্মীদের ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু, ফিরছেন পর্যটকেরাও

রাজ্য সরকার নির্দেশ দেওয়ার পরই শনিবার থেকে নিজেদের জেলায় শ্রমিক, কর্মীদের ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: শিলিগুড়িতে আটকে পড়া ভিন জেলার শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হল।  শনিবার প্রথম দফায় প্রায় ৩০০ জনকে ফেরানো হল সরকারি বাসে। দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলার লোকেরা শিলিগুড়িতে বিভিন্ন জায়গায় কাজ করতেন। ওদের কেউ রঙ মিস্ত্রি, কেউ দোকানের কর্মী, কেউ আবার  কারখানায় শ্রমিকের কাজে নিযুক্ত ছিলেন। করোনার মোকাবিলায় লকডাউন চলছে দেশজুড়ে। তার জেরেই এখানে আটকে পড়েন বহু শ্রমিক, কর্মী। কারখানা বন্ধ। বন্ধ দোকানপাট। ফলে কাজ নেই। একপ্রকার চরম দুশ্চিন্তার মধ্যে কাটছিল জীবন। সেইসঙ্গে পরিবারের লোকেরাও ছিল দুশ্চিন্তায়। প্রতিনিয়ত জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করতে থাকে তারা।

রাজ্য সরকার নির্দেশ দেওয়ার পরই শনিবার থেকে নিজেদের জেলায় শ্রমিক, কর্মীদের ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহন সংস্থার ১৩টি বাস রওনা দেয় কলকাতার পথে। কেউ দক্ষিণ ২৪ পরগনার বাসিন্দা। কেউ আবার হুগলি বা আলিপুরের বাসিন্দা। শিলিগুড়ি মহকুমা শাসকের দফ?তর থেকে ফোন পেয়েই ওরা ছুটে যায় তেনজিং নোরগে বাস টার্মিনাসে। সেখানেই দাঁড়িয়ে থাকে সরকারি বাস। যাত্রীদের বাসে ওঠানোর আগে থার্মাল পরীক্ষা করেন স্বাস্থ্য কর্মীরা। তারপর চলে তথ্য যাচাইয়ের পালা।

এরপর এক এক করে ভিন জেলার শ্রমিক, কর্মীদের বাসে ওঠার পালা শুরু হয়। শুধু শ্রমিকেরাই নয়, অনেকেই বেড়াতে এসে আটকে পড়েছিলেন শিলিগুড়িতে। প্রায় দেড় মাস বাদে মিললো বাড়ি ফেরার বাস। স্বস্তির নিঃশ্বাস যাত্রীদের। বাড়িতে ফেরার আশার আলো যে এল অবশেষে। রাজ্যের এহেন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন। প্রশাসনিক সূত্রের খবর, কয়েক হাজার শ্রমিক, কর্মী আটকে রয়েছে শিলিগুড়িতে। ধাপে ধাপে প্রত্যেককেই ফেরানো হবে নিজের নিজের জেলায়। শিলিগুড়ি পুরসভার বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকার জানান, জেলা প্রশাসনের কাছে আবেদন জমা পড়ছে। তারই নিরিখে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে সকলকেই ফেরানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এর আগে সরকারী বাসে কোটা থেকে ফিরে আসা পড়ুয়াদের উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় ফেরানো হয়েছিল।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: May 10, 2020, 9:49 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर