• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • পণের দাবিতে মহিলা খুন ! গ্রেফতার স্বামী, শাশুড়ি ও দেওর

পণের দাবিতে মহিলা খুন ! গ্রেফতার স্বামী, শাশুড়ি ও দেওর

মেয়ের বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের দাবিতে অত্যাচার চলত মেয়ের ওপর।

মেয়ের বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের দাবিতে অত্যাচার চলত মেয়ের ওপর।

মেয়ের বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের দাবিতে অত্যাচার চলত মেয়ের ওপর।

  • Share this:

#মালদহঃ-পণের দাবিতে গৃহবধূকে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ। স্বামী-সহ শ্বশুর বাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ মেয়ের বাড়ির। গ্রেফতার স্বামী, শাশুড়ি এবং দেওর। মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর থানার দৌলতনগরের ঘটনা। পাঁচবছর আগে সম্বন্ধ করে বিয়ে হয় সোনা মণ্ডল(২৫) নামে ওই মহিলার।

মেয়ের বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের দাবিতে অত্যাচার চলত মেয়ের ওপর। বিয়েতে ছেলে পক্ষের দাবি মেনে পণ বাবদ যাবতীয় জিনিসপত্র দেওয়া হয়। এরপরেও বুধবার ফের বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য চাপ দেওয়া হয়েছিল মেয়েকে। বুধবার দুপুরে দেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মালদহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। জানা  গিয়েছে, বছর পাঁচেক আগে স্কুলে কর্মরত সুবীর মণ্ডলের সঙ্গে বিয়ে হয় রতুয়া থানার সুজাপুর এলাকার বাসিন্দা সোনা মণ্ডল নামে ওই মহিলার।

বিয়েতে পাত্র পক্ষের দাবি মতো নগদ টাকা, ফ্রিজ, খাট, শো-কেস, আলমারি ইত্যাদি দেওয়া হয়েছিল। কিন্ত, এরপরেও শ্বশুরবাড়িতে চলত অত্যাচার। সম্প্রতি অত্যাচার চরমে ওঠে। মঙ্গলবারও পণ বাবদ টাকা আনার জন্য চাপ দেওয়া হয়। এরপরেই এদিন সকালে শোবার ঘরে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় ওই মহিলাকে। যদিও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের দাবি, গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে ওই মহিলা। মৃত্যুর কারণ জানা নেই বলেও দাবি শ্বশুর বাড়ির লোকজনের। এদিকে গৃহবধূর দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। দোষীদের শাস্তির দাবিতে সরব হন এলাকার বাসিন্দারা।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: