মাঘের শীতে জবুথবু উত্তরবঙ্গ, দেখা নেই সূয্যিমামার

গরম পোষাক কেনার হিড়িক। ভিড় বাড়ছে কফি শপ, মোমো স্টলে

গরম পোষাক কেনার হিড়িক। ভিড় বাড়ছে কফি শপ, মোমো স্টলে

  • Share this:

# শিলিগুড়ি: প্রবাদেই আছে "মাঘের শীত বাঘের গায়!" অর্থাৎ মাঘের শীতে বাঘ মামাও কাঁপতে থাকে। সবে মাঘ মাস পড়েছে। আর তাতেই কনকনে ঠাণ্ডায় কাঁপছে শিলিগুড়ি সহ উত্তরবঙ্গ। সকাল থেকেই রোদের দেখা নেই। চারপাশে ঘন কুয়াশার চাদর। আবার বিকেল গড়াতেই কুয়াশাচ্ছন্ন হয়ে পড়ছে গোটা শহর। দিনের বেলাতেই শহরের রাস্তায় আলো জ্বালিয়ে চলছে গাড়ি, মোটর বাইক। হাড়কাঁপানো ঠাণ্ডা। হিমেল হাওয়ার জেরে প্রবল শীত। তাপমাত্রাও নামছে হু হু করে। এমন ঠাণ্ডায় খুব একটা কাজ না থাকলে কেউই বাড়ি থেকে সচরাচর বের হচ্ছেন না।

চোখ বাদ দিয়ে পুরো শরীরই সোয়েটার,জ্যাকেট, মাফলার, উলের টুপিতে মোড়া। তবু যেন কাঁপুনি কিছুতেই কমছে না! আর তাই ভিড় বাড়ছে চা-কফি শপ থেকে মোমোর দোকানে। একটু উষ্ণতার খোঁজে। গরমা গরম চা বা কফির কাপে চুমুক। আর চিকেন বা ফ্রাই মোমো তো থাকছেই। সঙ্গে বেশি চাহিদা মোমোর স্যুপের।

পাহাড়েও যেমন পারদ নামছে। তেমনি সমতলের শিলিগুড়ি সহ গোটা উত্তরবঙ্গেই জাঁকিয়ে বসেছে শীত। পৌষের শীতকে এক ধাক্কায় অনেকটা পেছনে ফেলে মাঘে দাপট অব্যাহত শীতের। ঠাণ্ডা বাড়ায় ভিড় বাড়ছে শহরের ভুটিয়া মার্কেট এবং তিব্বেতিয়ান মার্কেটে। শীতের জামাকাপড় কেনার ধুম। বাইরে থেকে গরম সোয়েটার, জ্যাকেট, পঞ্চু, টুপি নিয়ে আসা ব্যবসায়ীরাও বেশ খুশী। বিকিকিনি যে জমজমাট। সকাল হোক কিংবা সন্ধ্যেয়, শীতের ঠাণ্ডার হাত থেকে বাঁচতে রাস্তার ধারেই অনেকে ব্যস্ত আগুন পোহাতে। সন্ধ্যের পর থেকে শহরের প্রধান রাস্তাগুলো কার্যত জনশূন্য। শীতের তীব্রতা আরো বাড়বে বলে জানিয়েছে হাওয়া অফিস। শেষ বেলায় মাঘের শীতের কামড়ে জবুথবু শিলিগুড়িবাসী। মাঝে কিছু দিন ঠাণ্ডার প্রকোপ কমেছিল। কিন্তু মকর সংক্রান্তির পরই ফের স্বমহিমায় শীত!

Partha Sarkar

Published by:Elina Datta
First published: