গুলিবিদ্ধ বিজেপি প্রার্থীর সামান্য উন্নতি, তবে বিপদমুক্ত নন, রাস্তায় অবরোধ বিজেপি কর্মীদের

গুলিবিদ্ধ বিজেপি প্রার্থীর সামান্য উন্নতি, তবে বিপদমুক্ত নন, রাস্তায় অবরোধ বিজেপি কর্মীদের

মঙ্গলবারও তাঁকে রাখা হবে পর্যবেক্ষণে।

মঙ্গলবারও তাঁকে রাখা হবে পর্যবেক্ষণে।

  • Share this:

#মালদহ: মালদহ বিধানসভার গুলিবিদ্ধ বিজেপি প্রার্থী গোপাল চন্দ্র সাহা অস্ত্রোপচারের পর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি' হয়েছে। তবে তিনি এখনও পুরোপুরি বিপদমুক্ত নন , এমনটাই জানিয়েছে মালদহ মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ। আগামী ২৪ ঘন্টা অর্থাৎ মঙ্গলবারও তাঁকে রাখা হবে পর্যবেক্ষণে। রবিবার গভীর রাতে অস্ত্রোপচার করে গুলি বের করার পর আপাতত প্রার্থীকে রাখা হয়েছে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে। মালদহ মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ পার্থ প্রতীম মুখোপাধ্যায় বলেন, তাঁর চিকিৎসায় ছয় সদস্যের মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে। চিকিৎসকেরা সব সময় নজরদারি চালাচ্ছেন। আপাতত ক্রমশ সুস্থ হচ্ছেন তিনি। এদিকে প্রার্থীর গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় রবিবারের পর  সোমবার সকাল থেকে উত্তপ্ত ছিল মালদহের বিভিন্ন এলাকা। সাতসকাল থেকে ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের চেঁচুমোর এলাকায় অবরোধ শুরু করেন বিজেপির নেতা কর্মীরা। রাস্তায় আগুন জ্বালিয়ে চলে বিক্ষোভ।

বেলা বাড়তেই মালদহ শহরের প্রাণকেন্দ্র বলে পরিচিত রথবাড়ি অবরোধ করে প্রতিবাদ শুরু করেন বিজেপির কর্মীরা।মালদহ বিধানসভার মুচিয়া, আইহো, চৌরঙ্গী মোড় প্রভৃতি এলাকাতেও চলে বিক্ষোভ,  আন্দোলন। প্রতিটি ক্ষেত্রেই পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।রাতের ঘটনার পর এদিন সকালেও এলাকার পরিস্থিতি ছিল থমথমে। জনবহুল বাজার এলাকা ঝন্টু মোড় এলাকায় এদিন দৈনিক বাজার জমেনি। লোকজনের আনাগোনা ছিল অন্যান্য দিনের তুলনায় কম। স্থানীয়রা জানান, অতীতে কখনোই রাজনৈতিক কোনো রকম গোলমালের নজির নেই আপাত শান্ত এই এলাকায়। অসংখ্য লোকের উপস্থিতি মধ্যেই কিভাবে দুষ্কৃতী গুলি চালিয়ে পালিয়ে যেতে পারল, এদিন তা নিয়েও বিভিন্ন জায়গায় জটলা করে আলোচনা হতে দেখা যায়। তদন্তের প্রয়োজনে ইতিমধ্যেই বিজেপির ওই অস্থায়ী কার্যালয় বন্ধ করে দিয়েছে পুলিশ। ঘটনার উপযুক্ত তদন্তের দাবি তুলেছেন রাজনীতি নির্বিশেষে এলাকার মানুষজন।এভাবে প্রার্থীর ওপর গুলি চালানোর ঘটনায় এদিন নিন্দা প্রকাশ করেন কংগ্রেস প্রার্থী ভূপেন্দ্রনাথ হালদার। এদিন সকালে বিধানসভা এলাকায় প্রচার কর্মসূচিও স্থগিত রাখেন তিনি।

Sebak DebSarma

Published by:Debalina Datta
First published: