corona virus btn
corona virus btn
Loading

হু হু করে নদীতে বাড়ছে জলস্তর, মানুষকে বাঁচাতে ইতিমধ্যেই করা হল স্থানান্তরিত

হু হু করে নদীতে বাড়ছে জলস্তর, মানুষকে বাঁচাতে ইতিমধ্যেই করা হল স্থানান্তরিত

পাহাড়ে একটানা কয়েক দিনের প্রবল বর্ষনের কারনে নাগর এবং কুলিকের জলস্ফীতি হয়েছে

  • Share this:

#রায়গঞ্জ:  নাগর নদীর জলস্ফীতির কারণে রায়গঞ্জ ব্লকের গৌরী এবং বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরী হয়েছে। নদী সংলগ্ন ১৫ টি পরিবারকে উচু জায়গায় তুলে আনা হয়েছে। রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে নাগর নদীর জলস্ফিতির কারনে দুটি পঞ্চায়েত এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরী হয়েছে।পঞ্চায়েত সমিতি পরিস্থিতির উপর কড়া নজর রাখছে।জল বাড়লে নীচু এলাকার মানুষদের সরিয়ে আনা হবে।দুর্গত মানুষদের জন্য পর্যাপ্ত ত্রান মজুত করা হয়েছে।

পাহাড়ে একটানা কয়েক দিনের প্রবল বর্ষনের কারনে নাগর এবং কুলিকের জলস্ফীতি হয়েছে।নাগর নদীর জল এখন বিপদ সীমার অনেক নীচে থাকলেও রায়গঞ্জ ব্লকের বেশ কিছু নীচু এলাকায় জল ঢুকে পড়েছে।রায়গঞ্জ ব্লকের গৌরী গ্রাম পঞ্চায়েতের দুগদূয়ার,অনন্তপুর,ছোট ভিটিয়ার,গোয়ালদহ,ভিটিয়ার,পাড়ারপুকুর গ্রামের জল ঢুকে পড়েছে।

এছড়াও বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েতের কুমারজল,কামারটুলি,মাধবপুর,শাকদূয়ার,বাহিন, বিষ্ণুপুরে বন্যা পরিস্থিতি তৈরী হয়েছে।জল রাস্তার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া গৌরী এলাকার বেশ কয়েক টি সংযোগকারি রাস্তা ভেঙ্গে গেছে।ফলে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হবার আশঙ্কা থাকছে। নদী সংলগ্ন ১৫ টি পরিবার ফ্লাড রিলিফ ক্যাম্পে আনা হয়েছে।রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি মানস ঘোষ জানিয়েছেন,রায়গঞ্জ ব্লকের বেশ অঞ্চল বন্যা প্লাবন এলাকায়।নাগর নদীর জলস্ফীতির কারনে গৌরী এবং বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় বন্যা পরিস্থিতি তৈরী হয়েছে।ব্লক প্রশাসনের তরফ থেকে বন্যা মোকাবিলায় সব রকম প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ওই দুটি এলাকার উপর কড়া নজর রাখছে ব্লক প্রশাসন।আব্দুল সাত্তার নামে এক গ্রামবাসী জানালেন,নদীর জল গ্রামে ঢুকে পড়ায় বেশ কয়েকটি রাস্তা ভেঙে গেছে। ফলে রায়গঞ্জের সঙ্গে যোগাযোগ পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।এছাড়াও জমিতে জল আসায় বীজ ধান পুরোপুরি নষ্ট হয়ে যাবে।পাটের জমিতে জল ঢুকে পড়ায় পাটের ক্ষতি হবার আশঙ্কা থাকছে।জল ক্রমশ বাড়ছে বলে আব্দুল সাত্তার জানিয়েছেন।বাড়িতে জল আসার কারনেই তারা ফ্লাড সেন্টারে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানালেন গ্রামবাসি ডোমা শেখ।

Uttam Paul

Published by: Debalina Datta
First published: June 29, 2020, 9:09 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर