ঋতুমতী অবস্থায় বেদের মন্ত্রচ্চারণ করে সরস্বতী পুজো করলেন রায়গঞ্জের ঊষসী, কুর্নিশ নেটিজেনদের

ঋতুমতী অবস্থায় বেদের মন্ত্রচ্চারণ করে সরস্বতী পুজো করলেন রায়গঞ্জের ঊষসী, কুর্নিশ নেটিজেনদের
পুজো করছেন ঊষসী । ছবি- ফেসবুক ।

নিজে হাতে সরস্বতী পুজো করেছেন তিনি । বাবার কাছ থেকে তিনি শিখেছেন পুজোপাঠ । বেদের মন্ত্রও উচ্চারণ করেছেন । শুধু তাই নয়, ওই দিন মাসিক চলছিল তাঁর ।

  • Share this:

    #রায়গঞ্জ: কথায় কথায় সমাজের এক শ্রেণীর মানুষরা বলে ওঠেন ‘শাস্ত্রে রয়েছে’ । কিন্তু কোন শাস্ত্র, কোথায় লেখা, কী বা তার ব্যখ্যা...এ সব কেউ জানেন না । বৈদিক যুগে আমাদের সমাজ ছিল মাতৃতান্ত্রিক । সে সময় বেদ পাঠে নিষেধাজ্ঞা ছিল না মেয়েদের । উপনয়নেও অধিকার ছিল নারীদের । কিন্তু ধীরে ধীরে সমাজের কিছু ক্ষমতালোভী গোষ্ঠী সমাজকে পিতৃতান্ত্রিক করে তুলেছে । যার ফলস্বরূপ মেয়েদর অধিকার খর্ব করা থেকে শুরু করে, নারীর পায়ে প্রত্যেক পদক্ষেপে পরিয়ে দেওয়া হয়েছে নিয়মের শৃঙ্খল ।

    আজকের সমাজ ফের জেগে উঠেছেন নারীরা । মহিলা পুরোহিত আজ শাস্ত্র পাঠ করছেন, মন্ত্রচ্চারণ করে বিয়ে দিচ্ছেন, পুজোপাঠ করছেন । হয়তো তাতে এক শ্রেণীর মানুষদের গাত্রদাহ হচ্ছে, কিন্তু অনুপ্রেরণাও জোগাচ্ছে বহু মানুষকে । বহুদিনের জমে থাকা অন্ধকার কাটছে ধীরে ধীরে, নতুন সূর্যের আলোয় আলোকিত হচ্ছে এই সমাজ ।


    চিরাচরিত প্রথা ভাঙার পথে আরও একটা ধাপ এগোলেন রায়গঞ্জের তরুণী ঊষসী চক্রবর্তী । সম্প্রতি তাঁর ফেসবুকের একটি পোস্ট ঘিরে তোলপাড় হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়া । গত মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি ছিল সরস্বতী পুজো । ওই দিন ঊষসী একটি পোস্টে জানিয়েছিলে, নিজে হাতে সরস্বতী পুজো করেছেন তিনি । বাবার কাছ থেকে তিনি শিখেছেন পুজোপাঠ । বেদের মন্ত্রও উচ্চারণ করেছেন । শুধু তাই নয়, ওই দিন মাসিক চলছিল তাঁর । মাসিকের দ্বিতীয় দিনেই সরস্বতী পুজো করেছেন ঊষসী । আর এই কথা প্রকাশ্যে বলতে পিছপা হননি সাহসিনী ।

    কিন্তু ঊষসীর ওই পোস্টের পরেই তা নিয়ে শুরু হয়ে যায় নানারকম কাটাছেঁড়া । সমালোচনা, বিতর্ক । এক পক্ষ সশ্রদ্ধায় কুর্নিশ জানায় তাঁকে, আর এক পক্ষ আবার চরমভাবে নিন্দা ও সমালোচনায় বিদ্ধ করতে থাকে । তবে পরিবর্তনের যাত্রাপথে, আগল ভাঙার প্রথম ধাপে এি বিতর্কটুকু সঙ্গী হয়েই যায় । তার জন্য না থেমে থাকে সভ্যতা, না থমকে যায় এগিয়ে চলা ।

    Published by:Simli Raha
    First published: