পায়ে দড়ি বেঁধে টেনে হিঁচড়ে হেনস্থা দুই মহিলাকে, সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও

পায়ে দড়ি বেঁধে টেনে হিঁচড়ে হেনস্থা দুই মহিলাকে, সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও

সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল পায়ে দড়ি বেঁধে দুই মহিলাকে হেনস্থার ভিডিও।

  • Share this:

#গঙ্গারামপুর: দক্ষিণ দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে মধ্যযুগীয় বর্বরতার অভিযোগ। সোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল পায়ে দড়ি বেঁধে দুই মহিলাকে হেনস্থার ভিডিও। অভিযোগ, স্থানীয় নন্দনপুর পঞ্চায়েতের উপ-প্রধান অমল সরকারের বিরুদ্ধে। প্রথমে ঘটনায় যোগের অভিযোগ অস্বীকার তৃণমূল জেলা সভাপতির। পরে সাসপেন্ড উপপ্রধান। গত শুক্রবার বাড়ির সামনে রাস্তা তৈরির প্রতিবাদ জানান দুই মহিলা। সেখানেই নিগ্রহের অভিযোগ। শনিবার সোশাল সাইটে ভাইরাল এই ছবি। আক্রান্তদের দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন গ্রামবাসীরা। তাদের পাল্টা দাবি, গত বছর থেকে শুরু হয়েছে প্রধানমন্ত্রী গ্রাম সড়ক যোজনার কাজ। প্রস্তাব ছিল নন্দনপুর থেকে হাপুনিয়া পর্যন্ত চার কিলোমিটার রাস্তার সংস্কার। অভিযোগ, বারেবারে কাজে বাধা দেন ওই মহিলা ও তাঁর পরিবার। গত শুক্রবার নন্দনপুরে ফের কাজ শুরু হয়। কিন্তু আগের দাবিতেই অনড় থাকেন ওই মহিলা। তাঁর জমির উপর দিয়ে রাস্তা করা যাবে না। এই দাবিতে ফের সরব হন মহিলা ও তাঁর পরিবার।  ঘটনাস্থলে যান গ্রামপঞ্চায়েতের উপ-প্রধান অমল সরকার। তাঁর বিরুদ্ধেই দুই মহিলাকে নিগ্রহের অভিযোগ ওঠে। গঙ্গারামপুরের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শুরু তৃণমূল-বিজেপির কাজিয়া।  রবিবার নন্দনপুর পঞ্চায়েতের উপপ্রধান অমল সরকার-সহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর করা হয়েছে। এরপরেই অমল সরকারকে সাসপেন্ড করে তৃণমূল।পুরো ঘটনায় প্রশাসনের উপরেই আস্থা রাখছেন নিগৃহীতা।

First published: February 2, 2020, 4:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर