রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত অতিথি অধ্যাপকদের সঙ্গে দেখা করলেন উত্তর দিনাজপুর জেলার দুই বিধায়ক

রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত অতিথি অধ্যাপকদের সঙ্গে দেখা করলেন উত্তর দিনাজপুর জেলার দুই বিধায়ক

  • Share this:

#রায়গঞ্জ:  রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনরত অতিথি অধ্যাপকদের পাশে দাঁড়ালেন ইটাহারের তৃনমূল কংগ্রেস বিধায়ক অমল আচার্য এবং রায়গঞ্জ কংগ্রেস বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত। দুই রাজ্য সরকারের কাছে বিষয়টি তুলে ধরার আশ্বাস দিয়েছেন। রায়গঞ্জ কংগ্রেস বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্যপালকে লিখিত আকারে জানাবার আশ্বাষ দিয়েছেন। বিধায়কদ্বয় তাদের পাশে থাকার আশ্বাস দেওয়ায় তারা নতুন করে উজ্জীবিত  হলেন।

রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে অতিথি অধ্যাপকদের "স্যাক্টের" আওতায় আনার দাবিতে গত ২১ ডিসেম্বর ধর্নায় বসেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪ জন অতিথি অধ্যাপক। বিশ্ববিদ্যালয়ের চত্বরে খোলা জায়গায় আন্দোলন চালায় ঠান্ডায় আট জন আন্দোলনকারি অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। আজ আন্দোলনের অষ্টম দিন। বড়দিনের ছুটি রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়। আগামী ২ জানুয়ারি খুলবে বিশ্ববিদ্যালয়। ফাঁকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আব্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন অতিথি অধ্যাপকরা আটদিনের মাথায় আন্দোলনকারিদের সঙ্গে দেখা করে পাশে থাকার আশ্বাস দিলেন ইটাহারের তৃনমূল কংগ্রেস বিধায়ক অমল আচার্য এবং রায়গঞ্জ কংগ্রেস বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্ত। বিধায়ক অমল আচার্যের অভিযোগ, বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ সঠিক তথ্য রাজ্য সরকারের কাছে পেশ করতে না পারার কারনে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তিনি উচ্চশিক্ষা মন্ত্রী এবং শিক্ষা সচিবেফ সঙ্গে দেখা করে সমস্যা সমাধানের দাবি করবেন। অমলবাবুর আরো অভিযোগ, রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয় হলেও কলেজের অস্তিত্ব রয়েছে। সেই কলেজ থেকে আন্দোলনরত অতিথি অধ্যাপকরা সুবিধা পাবেন।আন্দোলনরত অতিথি অধ্যাপকদের সঙ্গে দেখা করে পাশে থাকার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। দু একদিনের মধ্যেই আন্দোলনরত  অতিথি অধ্যাপকদের সুবিচারের জন্য রাজ্যের উচ্চশিক্ষা মন্ত্রী এবং রাজ্যপালের কাছে লিখিত দাবি জানাবেন বলে মোহিতবাবু জানিয়েছেন।রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার দুর্লভ সরকার জানিয়েছেন, রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়ে কলেজের কোন অস্তিত্ব নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিথি অধ্যাপকদের কথা ভেবে উচ্চশিক্ষা দপ্তরের কাছে একাধিকবার লিখিত আবেদন করা হতেছে। এই সমস্যা শুধু রায়গঞ্জ বিশ্ববিদ্যালয়েই নয় আরো পাঁচটি বিশ্ববিদ্যালয়ে এই সমস্যা রয়েছে।তার আশা রাজ্য সরকার খুব শীঘ্রই এবিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে। উল্লেখ্য,২০০৯ সাল থেকে  রায়গঞ্জ কলেজে ২৪জন অতিথি অধ্যাপক হিসেবে কাজ করছেন। পরবর্তীতে ২০১৫  সালে রায়গঞ্জ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তীর্ন হয়।বিশ্ববিদ্যালয়ের উত্তীর্ন হলেও তারা কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। রাজ্য সরকার অস্থায়ী এবং আংশিক সময়ের শিক্ষকদের জন্য "স্যাক্ট" ঘোষনা করেছেন। স্যাক্টের আওতায় অস্থায়ী শিক্ষক এবং চুক্তিভিত্তিক শিক্ষকরা এলেও অতিথি অধ্যাপকদের এর আওতায় আনা হয় নি। তাদের এই আওতায় আনার দাবিতেই ২১ ডিসেম্বর থেকে অতিথি অধ্যাপক সংগঠন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে অনিদৃষ্ট ধর্না শুরু করেছেন।দিনে গরম রাতে ঠান্ডা প্রকৃতির এই খামখেয়ালি পনায় বেশ কয়েকজন আন্দোলনরত অতিথি অধ্যাপক অসুস্থ হয়ে পড়েন।চিকিৎসার পর সুস্থ হয়ে আবার তারা আন্দোলনে ফিরে এসেছেন।

Uttam Paul

Published by:Debalina Datta
First published:
0

লেটেস্ট খবর