corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাতভর বৃষ্টির জেরে ক্ষতিগ্রস্ত পঞ্চনই নদীর ওপর দুটি সেতু, বিচ্ছিন্ন যোগাযোগ !

রাতভর বৃষ্টির জেরে ক্ষতিগ্রস্ত পঞ্চনই নদীর ওপর দুটি সেতু, বিচ্ছিন্ন যোগাযোগ !

নদী সংলগ্ন রাস্তা, বাজার চলে যায় জলের তলায়। রাতভর ঘুমোতে পারেনিনি এলাকাবাসীরা।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি:  আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস ছিলই। পাহাড় ও সমতলে নাগাড়ে বৃষ্টির জেরে ব্যহত জনজীবন। ফুলেফেঁপে উঠেছে মহানন্দা, বালাসন, পঞ্চনই নদী। পঞ্চনই নদীর স্রোতে ভেঙে পড়েছে সেতু। একাধক নদী সংলগ্ন জায়গায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। শিলিগুড়ি পুরসভার ১ এবং ৪৭ নং ওয়ার্ডের সংযোগকারী লোহার সেতু ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। গতকাল মাঝ রাতে পাতি কলোনীর সেতুর রেলিংয়ের ওপর দিয়ে জল গিয়েছে। যা সাম্প্রতিককালে কখোনো হয়নি বলে দাবী স্থানীয় বাসিন্দাদের। এলাকার বাড়ি বাড়ি জল ঢুকে যায়।

নদী সংলগ্ন রাস্তা, বাজার চলে যায় জলের তলায়। রাতভর ঘুমোতে পারেনিনি এলাকাবাসীরা। সকালেও সকলের চোখে মুখে সেই আতঙ্কের ছাপ। আজ ফের ভারী বৃষ্টি হলে ভাঙনের সম্ভাবনা। আজ ভোরে বৃষ্টি কিছুটা কমলে জল নেমে যায়। তবে সেতু ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় বিপাকে বাসিন্দারা। ঘুরপথে শিলিগুড়ির সঙ্গে যোগাযোগ করতে হচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে সেতু সংস্কারের দাবী জানিয়ে আসা হয়েছিল। কিন্তু পূর্ত দপ্তর নড়েচড়ে না বসায় এই বিপত্তি। আজ সকালে ঘটনাস্থলে যান পূর্ত দপ্তরের আধিকারীকেরা। তারা লোহার সেতুটি খতিয়ে দেখেন। পরে পে রোলার দিয়ে সেতু সংস্কারের কাজ শুরু হয়েছে। তবে যেভাবে পিলার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, তাতে সেতু দিয়ে যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ। একইভাবে ৫৫ নং জাতীয় সড়কে দাগাপুরের কাছে পঞ্চনই নদীর জলস্রোতে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে আরো একটি পাকা সেতু।

সেতুর একাধীক জায়গায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। আপাতত একমুখী যান চলাচল করছে। নদী সংলগ্ন এলাকায় ভাঙন ধরা পড়েছে। এতে আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা। এলাকার একাধীক বাড়ি জলমগ্ন হয়ে পড়ে। জলস্রোতে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে পাশের রেল সেতুও। এই সেতু দিয়েই টয়ট্রেন চলাচল করে। যদিও লকডাউনের জেরে বন্ধ রয়েছে টয়ট্রেন পরিষেবা। বছর দুয়েক আগেও এই সেতুটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল। স্থানীয় বাসিন্দারা এর স্থায়ী সমাধান দাবী করেছেন। নতুন করে বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। আর তাই আতঙ্কিত এলাকাবাসী।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: July 28, 2020, 2:19 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर