মালদহে তৃণমূল প্রধানের বিরুদ্ধে তৃণমূলেরই অনাস্থা, কারণ ঘিরে চাঞ্চল্য...

এদিকে পঞ্চায়েতের ক্ষমতা দখলে নিয়ে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে অস্বস্তিতে তৃণমূল নেতৃত্ব।

এদিকে পঞ্চায়েতের ক্ষমতা দখলে নিয়ে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে অস্বস্তিতে তৃণমূল নেতৃত্ব।

  • Share this:

#মালদহ: মালদহের মানিকচকের ধরমপুর পঞ্চায়েতের তৃণমূল প্রধানকে সরাতে তৃণমূলেরই অনাস্থা। এদিকে অনাস্থার আগেই "খুন" হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ বিক্ষুব্ধ পঞ্চায়েত সদস্যদের। বিক্ষুব্ধদের খুনের জন্য ১০ লক্ষ টাকা সুপারি দিয়েছেন পঞ্চায়েত প্রধান। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ বিক্ষুব্ধদের। খুনের সুপারী দেওয়ার অডিও ক্লিপ রয়েছে, এমনই দাবি অভিযোগকারীদের। আগামী ১৬ জুলাই ধরমপুর পঞ্চায়েতে অনাস্থা প্রস্তাব নিয়ে তলবি সভার দিন ধার্য করেছে প্রশাসন। তার আগেই প্রাণনাশের আশঙ্কা প্রকাশ বিক্ষুব্ধদের। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার পঞ্চায়েত প্রধানের। অনাস্থা ঘিরে তীব্র টানাপোড়েন মানিকচকের ধরমপুরে।

জানা গিয়েছে, মানিকচক ব্লকের অধীন ধরমপুর পঞ্চায়েতের মোট সদস্য সংখ্যা সাত। ২০১৮ পঞ্চায়েত নির্বাচনে চারটি আসনে জেতে নির্দল প্রার্থীরা। দুটি আসনে তৃণমূল এবং একটি আসন জেতে কংগ্রেস। এরপর বোর্ড গঠনের আগে এক কংগ্রেস ও এক নির্দল পঞ্চায়েত সদস্য তৃণমূলে যোগদান করেন। প্রধান পদ পান তৃণমূলের যোগ দেওয়া নাহারুল সেখ। উপপ্রধান হন তৃণমূলের টিকিটে জেতা বলাই সাহা।

কিন্তু, পঞ্চায়েতের কাজকর্ম নিয়ে শুরু হয় শাসকদলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। বিধানসভা নির্বাচনের পর গত মে মাসে ধরমপুর পঞ্চায়েতের প্রধান নাহারুল শেখের বিরুদ্ধে অনাস্থা আনেন উপপ্রধান সহ চারজন পঞ্চায়েত সদস্য। সূত্রের খবর, অনাস্থা আনার পর থেকেই  গোপন ডেরায় রয়েছেন ওই চার পঞ্চায়েত সদস্য। এরইমধ্যে অনাস্থা বানচাল করতে খোদ পঞ্চায়েত প্রধান তাঁদের খুনের জন্য সুপারি দিয়েছেন বলে অভিযোগ অনাস্থাতে সই করা বিক্ষুব্ধ সদস্যদের। প্রাণনাশের আশঙ্কার কথা জানিয়ে মানিকচক থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন তাঁরা।

যদিও তাঁর বিরুদ্ধে আনা দলেরই বিক্ষুব্ধদের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন ধরমপুর পঞ্চায়েত প্রধান নাহারুল শেখ। বিক্ষুব্ধদের কথামতো দুর্নীতিতে সায় না দেওয়াতেই অনাস্থা আনা হয়েছে বলে দাবি তাঁর। খুনের জন্য সুপারি দেওয়ার অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যে বলে দাবি করেছেন তিনি।

এদিকে পঞ্চায়েতের ক্ষমতা দখলে নিয়ে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে অস্বস্তিতে তৃণমূল নেতৃত্ব। মালদা জেলা তৃণমূল চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ন চৌধুরী বলেন, পার্টি আগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে এভাবে বিক্ষুব্ধরা অনাস্থা আনতে পারবেন না।  পঞ্চায়েতের পদাধিকারীদের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ থাকলে তা আগে দলকে জানাতে হবে। তবে, প্রধানের বিরুদ্ধে সুপারি কিলার নিয়োগের যে অভিযোগ উঠছে তাও গুরুতর। এমন হলে দল কড়া পদক্ষেপ নেবে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published: