• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • Travel Advisory for Darjeeling Bound Tourists: সেতুতে ফাটল, রাস্তায় ধস! দু' দিন পর্যটকদের দার্জিলিংয়ে না যাওয়ার পরামর্শ প্রশাসনের

Travel Advisory for Darjeeling Bound Tourists: সেতুতে ফাটল, রাস্তায় ধস! দু' দিন পর্যটকদের দার্জিলিংয়ে না যাওয়ার পরামর্শ প্রশাসনের

টানা বৃষ্টিতে এমনই অবস্থা পাহাড়ের রাস্তার৷

টানা বৃষ্টিতে এমনই অবস্থা পাহাড়ের রাস্তার৷

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: পুজোর পর ছুটি কাটাতে অনেকেই দার্জিলিং (Darjeeling) সহ উত্তরবঙ্গের পাহাড়ে ঘুরতে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন৷ কিন্তু একটানা প্রবল বৃষ্টিতে কার্যত বিপর্যস্ত পাহাড়৷ ইতিমধ্যেই মাটিগাড়ার কাছে বালাসোন সেতুর পিলারে ফাটল ধরে বাগডোগরা থেকে দার্জিলিং যাওয়ার পথ বন্ধ হয়ে গিয়েছে৷ রোহিনী হয়ে ঘুরপথে চলছে গাড়ি৷ এর পাশাপাশি শিলিগুড়ি থেকে দার্জিলিং, কালিম্পঙগামী বিভিন্ন রাস্তায় ধস নেমেছে আটকে রয়েছে বহু গাড়ি৷ পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে আগামী দু' দিন পর্যটকদের দার্জিলিং এবং কালিম্পংয়ে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে প্রশাসন (Travel Advisory for Darjeeling Bound Tourists)৷

গত প্রায় আটচল্লিশ ঘণ্টা ধরে টানা বৃষ্টি চলছে পাহাড় সহ গোটা উত্তরবঙ্গে (North Bengal Weather)৷ প্রবল বৃষ্টিতে অনেক জায়গাতেই বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে তিস্তা৷ উনত্রিশ মাইলে বড়সড় ধস নেমে বাংলা- সিকিমের (Sikkim Bengal Connectivity) মধ্যে সংযোগকারী ১০ নম্বর জাতীয় সড়কও অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে৷ এর পাশাপাশি শিলিগুড়ি থেকে দার্জিলিংয়ের মধ্যে সংযোগকারী ৫৫ নম্বর জাতীয় সড়কেও মাটিগাড়ার কাছে রাতভর বৃষ্টির জেরে বড়সড় ধস নেমেছে৷ বাতাসিয়া লুপের কাছে ধস নেমেছে বন্ধ হয়ে গিয়েছে এনজেপি- দার্জিলিং টয় ট্রেন (Darjeeling Toy Train) পরিষেবাও৷  লাভার সঙ্গে কালিম্পংয়ে র যোগাযোগও বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে৷ বহু পর্যটকই পাহাড়ে বেড়াতে গিয়ে আটকে পড়েছেন৷

আরও পড়ুন: প্রবল বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত পাহাড়, সিকিম যাওয়ার পথেও ধস! আজও উত্তরে ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা

টানা বৃষ্টিতে নদীর জলস্তর বেড়ে গিয়ে এবং প্রবল স্রোতে মাটিগাড়ার কাছে বালাসোন সেতুর তিন নম্বর পিলারে এ দিন সকালে ফাটল ধরা পড়ে৷ যার জেরে বাগডোগরা থেকে দার্জিলিংগামী গাড়িগুলিকে নৌকাঘাট সেতু হয়ে রোহিনীর দিকে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়৷ এ দিন সকাল থেকেও পাহাড়ে ফের বৃষ্টি শুরু হয়েছে৷ ফলে পরিস্থিতির অবনতির আশঙ্কা করছেন পুলিশ প্রশাসনের কর্তারা৷ বৃষ্টি কমে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বালাসোন সেতুর উপর দিয়ে যান চলাচল বন্ধ থাকবে৷

অন্যদিকে শুধু পাহাড় নয়, তিস্তার জলস্তর বেড়ে গিয়ে জলপাইগুড়ির নিচু এলাকাগুলিতে জল ঢুকতে শুরু করেছে৷ ফলে বেশ কিছু পরিবারকে ইতিমধ্যেই নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে৷ মাইকেও প্রচার শুরু করেছে জেলা প্রশাসন৷ আজও উত্তরবঙ্গের কোচবিহার, জলপাইগুড়ি ও আলিপুরদুয়ার জেলায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে৷ ফলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে৷ তিস্তা ব্যারেজ থেকেও জল ছাড়া হয়েছে৷ ফলে প্লাবিত হয়েছে বেশ কিছু এলাকা৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published: