কালী মন্দির, ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘে পুজো দিয়ে প্রচার শুরু রায়গঞ্জের তৃণমূলের প্রার্থীর! দলের সমর্থকদের ক্ষোভ কমাতে অভিনব উদ্যোগ

কালী মন্দির, ভারত সেবাশ্রম সঙ্ঘে পুজো দিয়ে প্রচার শুরু রায়গঞ্জের তৃণমূলের প্রার্থীর! দলের সমর্থকদের ক্ষোভ কমাতে অভিনব উদ্যোগ

ভারত সেবাশ্রম সংঘে পুজো দিয়ে প্রচার শুরু রায়গঞ্জের তৃনমূলের প্রার্থীর

রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের বিদায়ী বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্তের বিরুদ্ধেই মূল লড়াই। গত ৫ মার্চ তৃণমূল কংগ্রেস সর্বভারতীয় সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছেন। রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে অরিন্দম সরকারকে প্রার্থী না করায় দলীয় কর্মী সমর্থকদের ব্যপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছিল।

  • Share this:

#রায়গঞ্জ: এক সময়ের সহযোদ্ধা এবারে তাঁর প্রতিদ্বন্দী। রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে জেলা কংগ্রেস সভাপতি তথা সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী মোহিত সেনগুপ্ত। প্রয়াত কংগ্রেস নেতা প্রিয় রঞ্জন দাসমুন্সি, মোহিত সেনগুপ্তর হাত ধরে কানাইয়ালাল আগরওয়ালের রাজনীতিতে প্রবেশ। কংগ্রেস দল নির্বাচিত হয়ে ইসলামপুর পৌরসভা পৌরপতি হয়েছিলেন কানাইয়ালাল আগরওয়াল। ২০১৬ সালে ইসলামপুর বিধানসভা কেন্দ্রে বাম কংগ্রেস প্রার্থী দিলেও সেই জোটের বাইরে গিয়ে কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে কংগ্রেস প্রার্থী করেছিল।

সেই ইসলামপুর কেন্দ্র থেকেই বিধায়ক হয়েছিলেন কানাইয়ালাল আগরওয়াল। পরবর্তীতে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন তিনি। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস কানাইয়ালাল আগরওয়ালকে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী করেছিল। বিজেপি প্রার্থী দেবশ্রী চৌধুরীর কাছে কানাইয়াবাবু পরাজিত হয়েছিলেন। লোকসভা প্রার্থী হওয়ার কারণে বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন কানাইয়াবাবু। এবারে বিধানসভা নির্বাচনে কানাইয়ালালকে তৃণমূল কংগ্রেস ইসলামপুর বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী না করে রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্র থেকে প্রার্থী করে।

রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের বিদায়ী বিধায়ক মোহিত সেনগুপ্তের বিরুদ্ধেই মূল লড়াই। গত ৫ মার্চ তৃণমূল কংগ্রেস সর্বভারতীয় সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায় প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছেন। রায়গঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রে অরিন্দম সরকারকে প্রার্থী না করায় দলীয় কর্মী সমর্থকদের ব্যপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছিল। দলীয় কর্মী সমর্থকদের ক্ষোভ প্রশমিত করে মঙ্গলবার নির্বাচনী প্রচারে নামলেন তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়াল। এদিন তিনি রায়গঞ্জ পৌরসভা ২৭ নম্বর ওয়ার্ড দেবীনগর কালীমন্দির এবং ভারত সেবাশ্রম সংঘে পূজা দিয়েই প্রচার শুরু করেন।

আতস বাদি ফাটিয়ে দলীয় কর্মীরা তাঁকে স্বাগত জানান। কানাইয়ালাল জানান, নির্বাচনী প্রচারে নামার আগে দেবীনগর কালী মন্দিরে পুজো দিলেন। এছাড়াও ভারত সেবশ্রম সংঘের স্বামীজি তাঁর দীর্ঘদিনের পরিচিতি। দীর্ঘদিনের পরিচিত মানুষকে কাছে পেয়ে ভাল লাগছে বলেও জানান তিনি।

দীর্ঘ এক সপ্তাহ পরে প্রচারে নামার প্রসঙ্গে কানাইয়াবাবু জানান, শিশু ভূমিষ্ঠ হওয়ার পরই হেঁটে বের হয় না। একটু বড় হলেই হাঁটতে শেখে। রায়গঞ্জ বিধানসভায় সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী মোহিত সেনগুপ্ত এই বিষয়ে বলেন, দীর্ঘ ১৫ বছর বিধায়ক হিসেবে রয়েছেন মোহিত সেনগুপ্ত। তিনি এলাকার তেমন কোনও উন্নয়ন করেননি। অন্যদিকে মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ মানুষের জন্য প্রচুর প্রকল্প ঘোষনা করেছেন। রাজ্যের মানুষ তাঁর সুবিধা পাচ্ছেন। ফলে উন্নয়নের স্বার্থেই মানুষ এবারে তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করবেন বলে কানাইয়াবাবু আশাবাদী।

উত্তম পাল

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:
0