রাত পোহালেই ভোটের ফল, তৃণমূল কংগ্রেসের দুই প্রার্থী মা কালীর পুজো দিলেন, গেলেন পীরের দরগায়

দলীয় কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ঢাক বাজিয়ে হেমতাবাদের কালী মন্দিরে তারা পুজা দেন।

দলীয় কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ঢাক বাজিয়ে হেমতাবাদের কালী মন্দিরে তারা পুজা দেন।

  • Share this:

#হেমতাবাদ : নির্বাচনে জয়ী হতে কালী মন্দিরে পূজা দিলেন করনদিঘি এবং হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীরা। একই সঙ্গে নওদায় পীরের মাজারে কাপড় চড়ালেন দুই তৃনমূল কংগ্রেস প্রার্থী। মায়ের কাছে তাদের প্রার্থণা তারা যাতে নির্বাচনে জয়ী হন। একই সঙ্গে উত্তর দিনাজপুর জেলার নয়টি বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীদের জয়ী করার  জন্য মায়ের কাছে প্রার্থনা করেছেন।

রাত পেরোলেই  বিধানসভার নির্বাচনে ফলাফল ঘোষণা। ভোট যুদ্ধে লড়াইতে কে শেষ হাসি হাসবে তা নিয়ে রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের মধ্যে চরম উৎকণ্ঠা। সেই উৎকণ্ঠা কাটাতে মা কালীর শরনাপন্ন হলেন করনদিঘি এবং হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী গৌতম পাল এবং সত্যজিৎ বর্মন।  তাদের দুই প্রার্থী ছাড়াও জেলার নয়টি বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীরা জয়ী হন মায়ের কাছে এই প্রার্থণা করেন। দলীয় কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ঢাক বাজিয়ে হেমতাবাদের কালী মন্দিরে তারা পূজা দেন। মা কালীর কাছে পুজো দেওয়ার পর  হেমতাবাদ নওদার পীরের মাজারে কাপড় চড়ান। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের সঙ্গে নিয়ে পীরের মাজারে তারা যান।  তাদের সহযোগিতা নিয়েই পীরের মাজারে কাপড় চড়ান তৃণমূল কংগ্রেসের দুই প্রার্থী। তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কর্মীরা  ছাড়াও এদিন হেমতাবাদের বহু মানুষ সেখানে হাজির হয়েছিলেন। আচমকা হেমতাবাদ কালী মন্দিরে প্রচুর ঢাক বাজিয়ে পুজো দেওয়ার আওয়াজে আশেপাশের বহু মানুষ সেখানে পৌঁছন। করনদিঘি বিধানসভা কেন্দ্রের  তৃনমূল কংগ্রেস প্রার্থী গৌতম পাল জানান, দলীয় কর্মী সমর্থকদের নিয়ে তিনি এবং হেমতাবাদ বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী সত্যজিৎ বর্মন পূজা দিলেন। তিনি নির্বাচনে  জয়ী হতে পারেন তার জন্য মায়ের কাছে প্রার্থনা করেছেন।শুধু তিনি নন জেলার নয় টি বিধানসভা কেন্দ্রেই দলীয় প্রার্থীদের জয়ী করার জন্য মায়ের কাছে প্রার্থনা করেছে। কালী মন্দিরে পূজো দিয়ে তারা নওদা পীরের মাজারে কাপড় চড়ান।  তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থীরা জয়ী হলে এলাকায় উন্নয়নকে তরান্বিত করা সম্ভব হবে।

Uttam Paul

Published by:Debalina Datta
First published: