জলের হাইড্রোলিক প্রেসারেই কি একদিন চলবে এক্সক্যাভেটর? খোঁজ দিচ্ছে রায়গঞ্জের তিন ছাত্র– News18 Bengali

জলের হাইড্রোলিক প্রেসারেই কি একদিন চলবে এক্সক্যাভেটর? খোঁজ দিচ্ছে রায়গঞ্জের তিন ছাত্র

তেল বা বিদ্যুৎ নয়। জলের হাইড্রোলিক প্রেসারেই কি একদিন চলবে এক্সক্যাভেটর? তা তো ভবিষ্যৎই বলবে।

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Feb 19, 2017 09:47 AM IST
জলের হাইড্রোলিক প্রেসারেই কি একদিন চলবে এক্সক্যাভেটর? খোঁজ দিচ্ছে রায়গঞ্জের তিন ছাত্র
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Feb 19, 2017 09:47 AM IST

#রায়গঞ্জ: তেল বা বিদ্যুৎ নয়। জলের হাইড্রোলিক প্রেসারেই কি একদিন চলবে এক্সক্যাভেটর? তা তো ভবিষ্যৎই বলবে। তবে সেটা যে অসম্ভব নয়, তার নমুনা দেখাল রায়গঞ্জের হাতিয়া হাইস্কুলের ক্লাস নাইনের তিন ছাত্র। সৌরভ, আকাশ, নন্দদের এই চেষ্টাকে কুর্নিশ জানিয়েছেন খোদ জেলাশাসক। রাজ্যস্তরের প্রদর্শনীতেও অংশ নেবে তাদের প্রতিভা।

ক্লাস নাইনের সৌরভের ছোটবেলা থেকেই খেলনা বলতে ছিল নানা যন্ত্রপাতি। একসময় মেধাবি ছাত্রটির নজরে পড়ে এক্সক্যাভেটর। ভারি কাজের যন্ত্রের প্রতি আগ্রহ জন্মায় তাঁর। জানতে পারে যাবতীয় কাজটাই হয় হাইড্রোলিক পাওয়ারে। তাতে যেমন লাগে বিদ্যুৎ, তেমনি প্রয়োজন হয় তেলের। কিন্তু তেলের যোগান তো একদিন কমবেই। তাই তেলের বদলে জল-কে কাজে লাগালে কেমন হয়? দুই বন্ধু আকাশ ও নন্দকে নিয়েই শুরু হয় গবেষণা। যেমন ভাবনা, তেমন কাজ। কয়েকটি ইঞ্জেকশনের সিরিঞ্জ আর একগুচ্ছ পাইপ। তার মধ্যে দিয়ে জলের প্রেসার তৈরি করে মডেল বানিয়েছে তাঁরা।

হতদরিদ্র পরিবারে বাচ্চাকে খেলনা কিনে দেওয়ারও সামর্থ ছিল না তাঁদের। সেই ছেলেই যে একদিন অসাধারণ কৃতিত্বের দাবিদার হবে, তা কোনওদিন কল্পনা করেননি মা।

রায়গঞ্জের হাতিয়া হাইস্কুলে একই ক্লাসে পড়ে সৌরভ সরকার, আকাশ দাস ও নন্দ দাস। পড়াশোনার পাশাপাশিই নানা রকম মডেল বানানোর কাজ চালিয়ে যায় তিন বন্ধু। ছাত্রদের আগ্রহ দেখে পাশে দাঁড়িয়েছেন স্কুলের শিক্ষকরাও।

সম্প্রতি জেলা বিজ্ঞানমঞ্চের প্রদর্শনীতে প্রথম হয় সৌরভদের এই আবিষ্কার। আগামী এপ্রিলে রাজ্যস্তরের প্রতিযোগিতাতেও অংশ নেবে তারা।

First published: 09:09:37 AM Feb 19, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर