নতুন আধার কার্ড করতে উপচে পড়ল ভিড়, পরিস্থিতি সামাল দিতে রাস্তায় মহকুমা শাসক

নতুন আধার কার্ড করতে উপচে পড়ল ভিড়, পরিস্থিতি সামাল দিতে রাস্তায় মহকুমা শাসক
representative image

জনতার ভিড়ে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক

  • Share this:

#জলপাইগুড়ি: আধার কার্ডের সংশোধন, সংযোজন ও নতুন কার্ড করার জন্য সাতসকালে মাল পোস্ট অফিসের সামনে ভিড় জমালেন কয়েক হাজার মানুষ। জনতার ভিড়ে কার্যত অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক। পরিস্থিতি সামাল দিতে সামাল দিতে রাস্তায় নামেন মহকুমা শাসক বিবেক কুমার। বেলা ১১টা নাগাদ নতুন বিজ্ঞপ্তি ঘোষণার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

ডুয়ার্সের চা বাগান থেকে গ্রামাঞ্চলের বহু মানুষের আধার কার্ডে বিভ্রান্তি রয়েছে । একটা সময়ে বিভিন্ন বেসরকারি সাইবার কাফেতে আধার কার্ডের সংশোধন ও নতুন আধার  কার্ড করার ব্যবস্থা ছিল। তখন সমস্যা হয়নি। পরে সরকারি আধার কার্ডের সমস্যা মেটাতে মালের প্রধান ডাকঘরে কাউন্টার খোলা হয়। বন্ধ করে দেওয়া হয় বেসরকারি কাফেগুলিকে। মাল মহকুমা এলাকায় একটি মাত্র কাউন্টার থাকায় ডাকঘরে প্রতিদিন ভিড় বাড়তে থাকে। মাঝে ঝামেলা হয়েছিল। পরে ডাকঘর কর্তৃপক্ষ টোকেন সিস্টেম চালু করে, নির্দিষ্ট দিনে মিলত টোকেন। সেই টোকেনের দিন অনুযায়ী আবেদনকারীরা তাঁদের আবেদন জমা দিত, বাড়িতে পৌঁছে যেত কার্ড। সেইমতো ডাকঘর কর্তৃপক্ষ গত মাসে ২৮ জানুয়ারি টোকেন দেবে বলে বিজ্ঞপ্তি জারি করে। বিজ্ঞপ্তি প্রচার হতেই মঙ্গলবার ভোরের আলো ফোটার আগে থেকেই হাজার দশেক মানুষ ডাকঘরের সামনে ভিড় জমান। ডাকঘর খুলতেই মানুষের ভিড়ে অশান্ত হয়ে ওঠে এলাকা । ডাকঘর কর্তৃপক্ষের অনুমান ছিল, হাজার দুই মানুষ আসবে। ভিড় দেখে তাঁদের চক্ষু চড়কগাছ। টোকেন দেওয়া স্থগিত করতে বাধ্য হয়। এরপরই ক্ষুব্ধ জনতা পথ অবরোধ করে। পরিস্থিতি সামাল দিতে রাস্তায় নামেন মহকুমা শাসক। পরে সিদ্ধান্ত হয়, পঞ্চায়েত অনুযায়ী টোকেন নির্দিষ্ট দিনে দেওয়া হবে। ডাকঘর কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট একটি দিনে একটি গ্রাম পঞ্চায়েতের জন্য টোকেন দেবে। এই বিজ্ঞপ্তি মাইকে ঘোষণার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

First published: January 28, 2020, 6:15 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर