উত্তরবঙ্গ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

পুজোর চারদিন কার্শিয়ঙেই হয়ে যাক নির্জনতার সঙ্গে রোম্যান্টিক ডেট! রইল বিস্তারিত...

পুজোর চারদিন কার্শিয়ঙেই হয়ে যাক নির্জনতার সঙ্গে রোম্যান্টিক ডেট! রইল বিস্তারিত...
Photo: News 18 Bangla
  • Share this:

#কার্শিয়ং: দুয়োরানি কার্শিয়ং। শিলিগুড়ি থেকে দার্জিলিং যাওয়ার পথে বুড়ি ছুঁয়ে যাওয়া ছোট্ট পাহাড়ি জনপদ। পরতে পরতে যার আগুন-ঝরা রূপ। নির্জন পাহাড়ে কোলে, সবুজ চা-বাগানের ঢালে চুপচাপ দু-একদিন কাটানোর আদর্শ ঠিকানা কার্শিয়ং। পুজো এলেই, পালাই পালাই মন। শহুরে কোলাহল ছাড়িয়ে পাহাড়ি নির্জনতায় দু-একদিন কাটাতে অনেকেরই ডেস্টিনেশন উত্তরবঙ্গ। চেনা স্পটে অচেনা মূহূর্তরা সেখানে অপেক্ষায়। কুয়াশার চাদরে মোড়া ল্যান্ড অফ দ্য হোয়াইট অর্কিড কার্শিয়ং --এক বুক নির্জনতা নিয়ে অপেক্ষায়।

হোটেল, রিসর্টের অভাব নেই। রয়েছে বিভিন্ন হোম-স্টে। সদ্য শুরু হওয়া কনস্ট্যানটিয়া কটেজের অ্যাম্বিয়েন্স নজর কাড়়ছে। ঘরোয়া পরিবেশ। জানলা দিয়ে বরফ-সাজা কাঞ্চনজঙ্ঘা। উলটোদিকে পাহাড়ি চা-বাগান। ব্যালকনি থেকে দূর দিগন্তে জলরঙে আঁকা সূর্যাস্ত। দশ মিনিট হাঁটাপথে বিশ্ববিখ্যাত মকাইবাড়ি চা-বাগান। আর কি চাই? ডে ভিজিটে আশপাশের গ্রামে স্থানীয়দের সঙ্গে আড্ডা। মাটির উনুনে রাঁধা ট্রাডিশনাল নেপালি খাবার দিয়ে লাঞ্চ। দিনভর নানা দর্শনীয় স্পট ঘুরে সন্ধেবেলা ঘরে ফেরা।

ট্রাডিশনাল নেপালি ডিশে চার ধরণের আচার। মোমো-সহ ষোল রকম আইটেম। নিরামিষ ডিশের দাম দু’শো টাকা। আমিষ হলে আড়াইশো। মন চাইলে মিলবে চাইনিজও। ঘরের ভাড়া দু’হাজার থেকে তিন হাজার টাকা।

প্রেক্ষা শর্মা, কর্ণধার, কনস্ট্যানটিয়া কটেজ হোমস্টে ( খাবার নিয়ে বাইট) কিভাবে যাবেন?

--শিলিগুড়ি থেকে কার্শিয়ঙের দুরত্ব ৩৭ কিলোমিটার --বাগডোগরা বিমানবন্দর থেকে দুরত্ব ৩৬ কিলোমিটার --সময় লাগে এক থেকে দেড় ঘণ্টা --এনজেপি বা শিলিগুড়ি জংশন থেকে টয়ট্রেনেও পৌঁছনো যায় কার্শিয়ং স্টেশন হাতের নাগালে দার্জিলিং, মিরিক। পুজোর চারদিন কার্শিয়ঙেই হয়ে যাক নির্জনতার সঙ্গে রোম্যান্টিক ডেট।

First published: September 16, 2019, 8:32 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर