corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাড়ছে করোনা সংক্রমণ! কমছে সচেতনতা! শিলিগুড়িতে নতুন করে সতর্ক করা হচ্ছে মানুষকে !

বাড়ছে করোনা সংক্রমণ! কমছে সচেতনতা! শিলিগুড়িতে নতুন করে সতর্ক করা হচ্ছে মানুষকে !

কবে সচেতন হবে শিলিগুড়ি? এ প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে !

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: বাড়ছে সংক্রমণ। কমছে সচেতনতা। হ্যাঁ, শিলিগুড়ি শহরের বেশীরভাগ জায়গাতেই ধরা পড়ছে এই ছবি। পারস্পরিক দূরত্ব মানার বালাই নেই। মুখ ঢাকছে না মাস্ক বা ফেস কভারে। কারো কারো গলায় ঝুলছে মাস্ক! সচেতন করতে গেলে কটু কথাও শুনতে হয় বলে অভিযোগ। শহরবাসীকে সচেতন করতে এবারে পথে নামলো বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের ঐক্যবদ্ধ প্ল্যাটফর্ম শিলিগুড়ি ফাইট করোনা টিম। বিভিন্ন সংগঠনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। আজ এনজেপির গেট বাজারে চলে সচেতনতা শিবির। করোনা মোকাবিলায় নিজেকে এবং পরিবার সহ পড়শীদের বাঁচাতে কি করনিয়? এদিন মাইকে প্রচার করা হয়। পাশাপাশি মাস্ক না পড়ে যারা রাস্তায় বেড়িয়েছেন তাঁদেরও বোঝানো হয়। এমনকী হাতে তুলে দেওয়া হয় মাস্কও! বোঝানো হয় পরিস্থিতি ক্রমশ জটিল হচ্ছে শহরে।

এমন কোনো ওয়ার্ড বাকি নেই যে সংক্রমিত হয়নি। তবু কেন এই অসাবধানতা? কেন মাস্ক ছাড়া রাস্তায়? কেন ইতিউতি থুথু বা পান, গুটখার পিক ফেলা হচ্ছে? কার শরীরে উপসর্গ রয়েছে? কার নেই? কেউই জানে না। অথচ বিনা মাস্কে রাস্তায় বের হচ্ছেন, বাজার করছেন দিব্বি। সতর্ক না হলে সমূহ বিপদ। যেন শত্রুকে ঘরে ডেকে আনার মতো অবস্থা। উপস্থিত ছিলেন যুবভারতী ওয়েলফেয়ার সোসাইটি, দার্জিলিং জেলা লিগাল এইড ফোরাম, হিমালয়ান নেচার এণ্ড ফাউন্ডেশন, মনীষা নন্দী ফাউন্ডেশনের কর্তারা। সকলেই একই সুরব শহরবাসীকে সচেতন, সতর্ক থাকবার পরামর্শ দেন। লিগাল এইড ফোরামের সম্পাদক অমিত সরকার বলেন, আক্রান্তের গ্রাফ ঊর্দ্ধমুখী। এই সময়ে সরকারের গাইড লাইন অনুযায়ী কোভিড প্রোটোকল মেনে চলতে হবে। স্বাস্থ্য কর্তারাও উদ্বিগ্ন শিলিগুড়ির বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে। সেখানে সাধারণ বাসিন্দারা এগিয়ে না এলে শিলিগুড়িকে করোনার হাত থেকে বাঁচানো যাবে না। কেননা এই মুহূর্তে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যার হিসেবে উত্তরবঙ্গে শীর্ষে শিলিগুড়ি। পাহাড়বাসীরা করোনা সর্তকতার সব নিয়ম মেনে চলায় গত এক সপ্তাহে কোনো পজিটিভ কেস পাওয়া যায়নি। কবে সচেতন হবে শিলিগুড়ি?  এ প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে !

PARTHA PRATIM SARKAR

Published by: Piya Banerjee
First published: June 28, 2020, 12:09 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर