Covid-19: রবিবাসরীয় বাজারের থিকথিকে ভিড়, দোকানির মাস্ক নেমে আসছে থুতনিতে! ধরা পড়ল ভয়াবহ ছবি

বাজারের ক্রেতাদের অনেকে আবার মাস্ক ঝুলিয়ে রেখেছেন থুতনিতে। ভিড় ঠেলাঠেলি করে চলছে কেনাবেচা। কোথাও দেখা নেই পুলিশের। মালদহের রথবাড়ি বাজারে রবিবার সকালে ধরা পড়ল এমনই ভয়াবহ ছবি।

বাজারের ক্রেতাদের অনেকে আবার মাস্ক ঝুলিয়ে রেখেছেন থুতনিতে। ভিড় ঠেলাঠেলি করে চলছে কেনাবেচা। কোথাও দেখা নেই পুলিশের। মালদহের রথবাড়ি বাজারে রবিবার সকালে ধরা পড়ল এমনই ভয়াবহ ছবি।

  • Share this:

#মালদহ: মালদহে প্রতিদিন প্রায় পাঁচশো নতুন মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন করোনায়। অথচ, মালদহ জেলায় রবিবাসরীয় বাজারে ধরা পড়ছে থিকথিকে ভিড়ের ছবি। তাও আবার বাজার বন্ধ হয়ে যাওয়ার নির্দিষ্ট সময় সকাল ১০ টার পরেও। বাজারে উধাও শারীরিক দূরত্ব বিধি। এমনকি মাস্ক ছাড়াও বাজারে দিব্যি ঘুরে বেড়ানোর ছবিও ধরা পড়ছে।

বাজারের ক্রেতাদের অনেকে আবার মাস্ক ঝুলিয়ে রেখেছেন থুতনিতে। ভিড় ঠেলাঠেলি করে চলছে কেনাবেচা। কোথাও দেখা নেই পুলিশের। মালদহের রথবাড়ি বাজারে রবিবার সকালে ধরা পড়ল এমনই ভয়াবহ ছবি। দৈনিক বাজার থেকেই করোনা আরও ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা গেল প্রতি মুহূর্তেই। সব মিলিয়ে অসচেতনতার ছবি স্পষ্ট। বেলা বাড়লেও ভিড় কমার কোনও লক্ষণ নেই দৈনিক সবজি বাজারে। গত কয়েকদিন ধরেই মালদহ জেলায় গড়ে প্রায় পাঁচশো নতুন করোনা রোগীর হদিশ মিলছে।

জেলার মেডিকেল কলেজ থেকে বেসরকারি হাসপাতালগুলোতে ঠাঁই নেই। করোনা ঠেকাতে একদিকে আংশিক লকডাউন অন্যদিকে ক্রমাগত চলছে প্রশাসনের মাইকিং। কিন্তু করোনা বিধি না মানার ছবি ধরা পড়ছে বাজারগুলিতে। মালদহ শহরে বড় দৈনিক বাজার বলে পরিচিত রথবাড়ি বাজার। শহরের বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষজন আসেন এ বাজারে কেনাকাটা করতে। আবার জেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে বিক্রেতারাও সবজি নিয়ে আসেন এখানে।

সরকারি নিয়ম অনুযায়ী প্রতিদিন সকাল সাতটা থেকে দশটা আর তিনটে থেকে পাঁচটা পর্যন্ত বাজার খোলা থাকার কথা । কিন্তু সকাল দশটার পরেও দিব্যি থিকথিকে ভিড়ের ছবি মালদহের রথবাড়ি বাজারে । দেখে বোঝার উপায় নেই এখন করোনা কাল। বাজারের ভিড়ের মধ্যেই মাস্কহীন অবস্থায় অনেকেই দিব্যি ঘোরাফেরা করছেন । ক্রেতা বিক্রেতাদের একাংশ সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধিদের দেখে মাস্ক মুখে তুলছেন ঠিকই । তবে একটু আড়াল হতেই ফের মাস্ক চলে আসছে থুতনিতে । করোনা বিধি কার্যত কাগজে কলমে। ঘোষনাই সার কিন্তু শারীরিক দুরত্ব বিধি কার্যকর করতে চোখে পড়ছে না পুলিশ বা প্রশাসনের উদ্যোগ।

Sebak Deb Sarma

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: