উত্তরে এবার প্রচার শুরু শুভেন্দুর! চা-বলয়কে পাখির চোখ করল গেরুয়া শিবির

উত্তরে এবার প্রচার শুরু শুভেন্দুর! চা-বলয়কে পাখির চোখ করল গেরুয়া শিবির

এবার চা বলয়ে প্রচারে নামছেন শুভেন্দু অধিকারী। আজ আলিপুরদুয়ার থেকে সেই সফর শুরু করছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। পাখির চোখ উত্তরবঙ্গ। লোকসভা নির্বাচনে যেখানে পায়ের তলার মাটি টলোমলো ছিল, সেখানেই ঘাসফুল ফোটাতে লড়াই শুরু করে দিয়েছেন খোদ মমতা বন্দোপাধ্যায়।

এবার চা বলয়ে প্রচারে নামছেন শুভেন্দু অধিকারী। আজ আলিপুরদুয়ার থেকে সেই সফর শুরু করছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। পাখির চোখ উত্তরবঙ্গ। লোকসভা নির্বাচনে যেখানে পায়ের তলার মাটি টলোমলো ছিল, সেখানেই ঘাসফুল ফোটাতে লড়াই শুরু করে দিয়েছেন খোদ মমতা বন্দোপাধ্যায়।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: তফশিলী জাতি,উপজাতির মানুষের ভোট চলতি বছরে হতে চলেছে সরকার গঠনের অন্যতম নির্ণায়ক। এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক দলগুলি৷ বিশেষ করে দুই যুযুধান পক্ষ তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপি মনে করছে এমনই। গোটা বাংলায় তাই তফশিলী জাতি, উপজাতিদের ভোট রাখতে লড়াই চালাচ্ছে শাসক দল তৃণমুল কংগ্রেস ও বিরোধী দল বিজেপি।

তাই এবার চা বলয়ে প্রচারে নামছেন শুভেন্দু অধিকারী। আজ আলিপুরদুয়ার থেকে সেই সফর শুরু করছেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। পাখির চোখ উত্তরবঙ্গ। লোকসভা নির্বাচনে যেখানে পায়ের তলার মাটি টলোমলো ছিল, সেখানেই ঘাসফুল ফোটাতে লড়াই শুরু করে দিয়েছেন খোদ মমতা বন্দোপাধ্যায়। উত্তরবঙ্গের মানুষের কাছে তিনি বলেছেন, "লোকসভা ভোটে গো-হারা হেরেছি। আশা করি বিধানসভা ভোটে আমাকে আপনারা পুষিয়ে দেবেন।"

সেই লক্ষ্যেই এবার উত্তরের আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্ক অটুট রাখতে কিছুদিন আগেই ডুয়ার্সে সফর করেছেন তিনি। গত দু'সপ্তাহেই তাঁর নজরে ছিল কোচবিহার ও আলিপুরদুয়ার জেলা। আগামী ২০ তারিখ নাগরাকাটায় সভা করতে যাবেন তৃণমূল যুব সভাপতি অভিষেক বন্দোপাধ্যায়। বিধানসভা ভোটকে সামনে রেখে উত্তরবঙ্গে চা-বলয়ে ও আদিবাসী ভোটে প্রচারে ঝাঁপিয়ে পড়েছে সব রাজনৈতিক দল। সেই লক্ষ্যেই এবার লড়াই শুরু করেছেন খোদ মমতা বন্দোপাধ্যায়। এমনকি উত্তরবঙ্গ থেকে ফিরে তিনি কলকাতায় তৃণমূলের তফশিলী জাতি, উপজাতি সম্মেলনে হাজির থাকছেন তিনি।

গত কয়েকদিন ধরে আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্ক ধরে রাখতে ফালাকাটা ও আলিপুরদুয়ার জেলায় হাজির ছিলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। এমনকি ফালাকাটায় রাজ্য সরকার আয়োজিত গণ-বিবাহের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। উত্তরে মেরামতি করতে চায় তৃণমূল কংগ্রেস। সেই মেরামতি করতে প্রয়োজন আদিবাসী ও তফশিলী জাতি-উপজাতির ভোট। যে ভোট বিজেপি টানার জন্যে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে। গত সপ্তাহেই বিজেপি কোচবিহার জেলা থেকে রথযাত্রার মাধ্যমে পরিবর্তন যাত্রার সূচনা করেছে। সেখানে হাজির থেকেছেন অমিত শাহ, জে পি নাড্ডার মতো কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তার আগেই 'পাশে আছি' এই বার্তা মমতা বন্দোপাধ্যায় দিয়ে এসেছেন উত্তরে।

ইতিমধ্যেই একাধিক জেলায় গিয়ে তফশিলী জাতি-উপজাতি অধ্যুষিত এলাকায় গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এঁদের সমস্ত ধরনের সাহায্য করা হচ্ছে প্রশাসনিকভাবেও। এবার শাসক দলের এই সংগঠনের নেতাদের নিয়ে রাজনৈতিক জমিও ধরে রাখতে চাইছেন তিনি। বিশেষ করে নাগরিকত্ব ইস্যু নিয়ে যখন বিজেপি এই রাজ্যে ঝাঁপাতে চাইছে এবং মতুয়া ভোট ব্যাঙ্ক ধরে রাখতে খোদ অমিত শাহকে আসতে হচ্ছে, তখন ভোটের আগে তফশিলী জাতি -উপজাতি ভোট নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে শাসক দল।

এই অবস্থায় মমতা বন্দোপাধ্যায়ের এক সময়ের বিশ্বস্ত সৈনিক শুভেন্দু অধিকারীকে তাই উত্তরের মাঠে নামালো বিজেপি। এছাড়া শিলিগুড়ি থেকে কোচবিহার অবধি শুভেন্দু অধিকারীর নিজস্ব অনুগামী রয়েছে। তাঁদের দিয়েও উত্তরের জমিতে পদ্ম চাষ করতে চায় বিজেপি। তবে পিছিয়ে নেই শাসক দলও। তাই আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি নাগরাকাটায় সভা করবেন অভিষেক বন্দোপাধ্যায়।

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published:

লেটেস্ট খবর