নির্বাচন নির্ঘণ্ট ঘোষণার দিনও মুর্শিদাবাদের সভামঞ্চ থেকে তৃণমূলকে আক্রমণ শুভেন্দুর

নির্বাচন নির্ঘণ্ট ঘোষণার দিনও মুর্শিদাবাদের সভামঞ্চ থেকে তৃণমূলকে আক্রমণ শুভেন্দুর

তৃণমূলকে আক্রমণ শুভেন্দুর

শুক্রবার বিকেলে লালবাগ রোড শোর পরে বড়ঞা বিধানসভার অন্তর্গত আন্দি গ্রামে কালীতলা মাঠে জনসভা করলেন শুভেন্দু অধিকারী। সেখান থেকেই আক্রমণ করেন শুভেন্দু।

  • Share this:

#মুর্শিদাবাদ: নির্বাচন নির্ঘণ্ট ঘোষণার দিনে মুর্শিদাবাদ জেলার বড়ঞা সভা মঞ্চ থেকে পুলিশ সহ তৃণমূলকে আক্রমণ করলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। শুক্রবার বিকেলে লালবাগ রোড শোর পরে বড়ঞা বিধানসভার অন্তর্গত আন্দি গ্রামে কালীতলা মাঠে জনসভা করলেন শুভেন্দু অধিকারী।

সভা মঞ্চ থেকে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, "এবছর একটু অন্যরকম ভোট দেখবেন। এবছর ভোট দিদির পুলিশ করবে না। দাদার পুলিশ করবে। বালি ও গাড়ি টাকা তোলার জন্য মাঠ বদলাতে হবে। নির্বাচন বিধি চালু হয়নি বলে পিসি-ভাইপো-কোম্পানি কাজ করছে। ভোটের দিনের জন্য নিরাপত্তা দিতে হবে। এবছর সরকার আমাদের হবে, ব্যাবহার বদলে ফেলুন আজকের পর।"

শুভেন্দু মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করে আরও বলেন, "১৫ মে-র পর আমাদের দলীয় কর্মীদের কাছে আসতে হবে। আমি সব কিছু লিখে রাখছি। পঞ্চায়েত নির্বাচনে ভোট হয়নি এই জেলায়। যেখানে ভোট হয়েছে সেখানে পদ্ম ফুল জিতেছে। লোকসভা নির্বাচনে দুটো আসন তৃণমূল দখল করেছে। যেখানে রাজ্যের পুলিশ ছিল সেখানে ভোট লুঠ হয়েছে। তৃণমূলের এখনই নাচার কিছু নেই। তবে অধীর চৌধুরী বলছেন ২২ পাবে আর তৃণমূল বলছে ২৪ পাবে তাই জল মেশাব না। মুর্শিদাবাদ জেলায় লড়াই হবে কংগ্রেসের সঙ্গে বিজেপির হবে।"

তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা বলছেন, "মুর্শিদাবাদ জেলায় তৃণমূল কংগ্রেস জমানা জব্দ হবে এবং তৃতীয় স্থানে থাকবে। আমাকে বলছে মির্জাফর! যদি শুভেন্দু অধিকারীর মূল্য না থাকে তাহলে মাননীয়া নন্দীগ্রামে দাঁড়াচ্ছে কেন? আমি হাফ লক্ষ ভোটে হারাব। শুধু নন্দীগ্রামে নয়, ভবানীপুরে হারাবো। আমি সব কিছু থেকে পদত্যাগ করে বিজেপি দলে যোগদান করেছি।"

ফের তৃণমূলের বিরুদ্ধে তোপ দেগে তিনি বলেন, "তৃণমূলের প্রত্যেক লোক চুরি আর কাটমানি, তোলাবাজি আর সিন্ডিকেট করে। ভাইপোকে তোলাবাজ বললেই রেগে যায়। বীরভূম জেলার বিভিন্ন প্যাড, কান্দি মহকুমা কোনও নদীর অস্তিত্ব নেই, ধ্বংস করে দিয়েছে। বালি গাড়ি লুঠ হচ্ছে। বলছে বাংলার মহিলাদের অপমান! কোন বাংলার মহিলা সোনা চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়েছে, কার থাইল্যান্ডে অ্যাকাউন্ট আছে? বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছে পঞ্চায়েতে। কাটমানি সর্বত্র। ডবল ইঞ্জিন সরকার কেন্দ্র ও রাজ্যের না এলে উন্নয়ন হবে না। সব দল ভোটে মনোনয়ন পত্র দাখিল করতে পারবে। বিজেপি সরকার এলে ৭৩লক্ষ কৃষক সুবিধা পাবেন।"

Pranab Kumar Banerjee

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: