এই প্রথম সর্বাত্মক নয় বনধ, কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে মোর্চা

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পাহাড়ে বন‍্ধ মোকাবিলায় কঠোর প্রশাসন। বুধবার ময়দানে নামেন তিন মন্ত্রীও।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পাহাড়ে বন‍্ধ মোকাবিলায় কঠোর প্রশাসন। বুধবার ময়দানে নামেন তিন মন্ত্রীও।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কার্শিয়াং: মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পাহাড়ে বন‍্ধ মোকাবিলায় কঠোর প্রশাসন। বুধবার ময়দানে নামেন তিন মন্ত্রীও। সরকারি অফিসে উপস্থিতির হার ছিল ৯৭ শতাংশ। নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিল পুলিশ ও সাত কোম্পানি আধাসামরিক বাহিনী। শাসকদল ও সরকারের সাঁড়াশি আক্রমণে এই প্রথম চ্যালেঞ্জের মুখে পাহাড়ের শাসক ৷

    পাহাড়ে বন‍্ধ-এর মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশ ছিলই। বুধবার পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখতে তিন মহকুমায় ছিলেন তিন মন্ত্রী। দার্জিলিঙে ছিলেন উপজাতি উন্নয়ন মন্ত্রী জেমস কুজুর ৷ কার্শিয়ংয়ে ছিলেন উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ ও কালিম্পংয়ে ছিলেন পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব ৷

    বন‍্ধ-এর চেনা ছবি দেখা যায়নি অফিসগুলিতে। কর্মীদের উপস্থিতির হার ছিল ৯৭%। সেই দেখে গুরুংকে কটাক্ষ করে রবীন্দ্রনাথ ঘোষের মন্তব্য, ‘বিমল গুরুঙের বিশ্বাসযোগ্যতা তলানিতে ঠেকেছে ৷ বনধের দিন রাস্তায় একটা ইঁদুরও বেরোবে না, একথা নিজেই বলেছিলেন বিমল গুরুং ৷ আজ বিমল গুরুং নিজেই ইঁদুরের গর্তে ঢুকেছেন ৷ পাহাড়ের মানুষ রাস্তায় নেমেছে, দোকানপাট খুলেছে ৷’

    বুধবার বন‍্ধ উপেক্ষা করেই চলে টয়ট্রেন। পথে নামে সরকারি বাসও। দোকান বাজারও ছিল খোলা। এদিনের বনধ নিয়ে পরিবহণমন্ত্রী বলেন,  ‘বনধ উপেক্ষা করেও পাহাড় সচল ৷ উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণের সব বাস চলেছে ৷ রাজ্যজুড়ে নেতিবাচক রাজনীতি বর্জন করা হোক ৷’ বন‍্ধ সর্বাত্মক হয়নি বুঝেই বয়ান বদল মোর্চা নেতৃত্বের।

    বুধবার, পাহাড়ে নিরাপত্তা ছিল আঁটসাঁটো। ৭ কোম্পানি আধাসামরিক বাহিনীর নেতৃত্বে ছিল বিশাল পুলিশ বাহিনী। প্রায় তিনশো বন‍্ধ সমর্থককে গ্রেফতার করা হয়। সবমিলিয়ে, শাসকদলের আগ্রাসন ও সরকারের কড়া ব্যবস্থার সাঁড়াশি চাপে এই প্রথম কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে পাহাড়ের শাসক ৷

    First published: