করোনা বিধি মেনে সিঙ্গারদহে শুরু হল সোনামতি কুম্ভরানী দূর্গাপুজো

করোনা বিধি মেনে সিঙ্গারদহে শুরু হল সোনামতি কুম্ভরানী দূর্গাপুজো

মন্দির চত্বর বাশ দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে। মন্দিরে প্রবেশের ক্ষেত্রে বিশেষ কড়াকড়ি করা হয়েছে।

মন্দির চত্বর বাশ দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে। মন্দিরে প্রবেশের ক্ষেত্রে বিশেষ কড়াকড়ি করা হয়েছে।

  • Share this:

#করণদিঘি: আজ, বুধবার, থেকে উত্তর দিনাজপুর জেলার করণদিঘি ব্লকের দোমহনা গ্রাম পঞ্চায়েতের সিঙ্গারদহ গ্রামে শুরু হল সোনামতি কুম্ভরানী দুর্গাপূজা। করোনা আবহের মধ্যে এই পূজা অনুষ্ঠিত হওয়ায় সরকারি সমস্ত রকম বিধিনিষেধ মেনে পুজোর আয়োজন করা হয়েছে।বাতিল করা হয়েছে মেলা। মন্দিরে পূর্ণার্থীদের জন্যও কড়াকড়ি থাকছে। পুরো মন্দির চত্বর বাঁশ দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে।

দুর্গাপুজোর আটদিনের পরের মঙ্গলবারে করণদিঘি ব্লকের সিঙ্গারদহ গ্রামে সোনামতি কুম্ভরানী দূর্গা পুজো অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। পরমপরায় ভাবে এই পুজো অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। সোনামতি নামে প্রায় ৫০ বিঘা জমি আছে। সেই জমির আয় থেকেই এই পুজো হয়ে আসছে। একদিনের পুজো হলেও সাতদিন ধরে মেলা হয়। উত্তর দিনাজপুর জেলা ছাড়াও পাশ্ববর্তী দক্ষিণ দিনাজপুর, কোচবিহার এবং জলপাইগুড়ি থেকে অসংখ্য মানুষ এই পুজো দেখতে আসেন। পুজোকে ঘিরে যে মেলা বসে সেই মেলাতেও অসংখ্য মানুষ উপস্থিত হন।

করোনা আবহের কারণে এবারে চিত্রটা অন্যরকম। অনাড়াম্বরভাবে এবারে পুজো অনুষ্ঠিত হচ্ছে। পূর্ণার্থী থেকে পুজো উদ্যোক্তা, প্রত্যেকের মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক। এছাড়াও মেলা পুরোপুরি বাতিল করা হয়েছে। পুজোর আনুষাঙ্গিক নিয়ে যে দোকানি বসেছেন তারা সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই দোকানদারি করছেন।

মন্দির চত্বর বাশ দিয়ে ঘিরে দেওয়া হয়েছে। মন্দিরে প্রবেশের ক্ষেত্রে বিশেষ কড়াকড়ি করা হয়েছে। সরকারি সমস্ত রকম বিধিনিষেধ মেনে এবারে পুজোর আয়োজন। পূর্ণার্থীরা পুজো কমিটির এই কড়াকড়ি মেনে নিয়েছেন। সিদুলি সিংহ নামে এক পূর্ণার্থী জানালেন,  পুজো দিতে তিনি মায়ের কাছে এসেছেন। মা সবাইকে ভাল রাখুক, সুস্থ রাখুক এই কামনা করি। আগামী বছর আবার ধূমধাম করে পুজো করা যাবে। পুজো কমিটির সম্পাদক গুনধর সিংহ জানিয়েছেন,মায়ের কাছে তাদের একটা আবেদন বিশ্ব করোনা মুক্ত হোক।সবাই যেন সুস্থ থাকে ভাল থাকে।

Published by:Pooja Basu
First published: