Home /News /north-bengal /
নির্বাচনের দিন ঘোষণা হয়নি, আগেই শুরু কংগ্রেসের দেওয়াল লিখন, অস্বস্তিতে বামেরা, গুরুত্ব দিতে নারাজ ঘাসফুল শিবির!

নির্বাচনের দিন ঘোষণা হয়নি, আগেই শুরু কংগ্রেসের দেওয়াল লিখন, অস্বস্তিতে বামেরা, গুরুত্ব দিতে নারাজ ঘাসফুল শিবির!

Suliguri Municipality: শিলিগুড়ি পুরসভার পর মহকুমা পরিষদ দখলকেই পাখির চোখ করে এগোচ্ছে তৃণমূল!

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: এখনও দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয়নি। প্রার্থীদের নাম ঘোষণা হয়নি। তার আগেই প্রচারে কংগ্রেস। শুরু দেওয়াল লিখন। শিলিগুড়ির বাগডোগরায় একাধিক জায়গায় দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে দেওয়াল লিখন শুরু। যখন বিরোধীরা তাকিয়ে নির্বাচন কমিশনারের ঘোষণার দিকে। তখন কিছুটা হলেও নিজেদের এগিয়ে রেখে প্রচার শুরু হাত শিবিরের। যেখানে বামেদের সঙ্গে জোট বা আসন রফার সম্ভাবনা রয়েছে। সেখানে সঙ্গীকে "একলা" রেখেই ভোট যুদ্ধে নেমে পড়েছে কংগ্রেস!

আরও পড়ুন Election in Hills: জিটিএ ভোটের পাশাপাশি, পাহাড়ে বাকি থাকা পুরসভাতেও কি হবে নির্বাচন? জল্পনা তুঙ্গে

সামনেই শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের ত্রিস্তরীয় নির্বাচন। ২০২০-র সেপ্টেম্বরে মেয়াদ ফুরোলেও এখোনও ভোটের দিন ঘোষণা হয়নি। জুন মাসেই নির্বাচন হবে, তা ধরে নিয়েই প্রচার শুরু কংগ্রেসের। যদিও এতে বিতর্কের কিছু দেখছে না দল। নকশালবাড়ি ব্লক কংগ্রেস সভাপতি অমিতাভ সরকার জানান, "আমরা খবর পেয়েছি আগামী ২৭জুন মহকুমা পরিষদের ভোট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সময় কম পাওয়া যাবে। কয়েকটি আসনে প্রার্থীদের নামও ঠিক করা হয়েছে। তাই দেওয়াল লিখন শুরু হয়েছে। নির্বাচনে এবারেও ভালো ফল করবে দল।

অন্যদিকে "সম্ভাব্য" জোট সঙ্গী দেওয়াল লিখন শুরু করায় কিছুটা অস্বস্তিতে বামেরা। সিপিএম নেতা শীতল দত্ত বলেন,  "কংগ্রেস তার দায়িত্ব নিয়ে দেওয়াল লিখেছে, তাতে আমাদের কিছু বলার নেই। তৃণমূল ও বিজেপিকে পরাস্ত করতে আমরা কাজ করব। এই দুই দল বিরোধীদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করা হবে।

যদিও একে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেস। এমনকী কংগ্রেসকে অ্যাডভান্টেজ অবস্থানে বসাতেও রাজি নয়। তৃণমূলের নীতি আদর্শ রয়েছে। ভোটের নির্ঘন্ট বাজেনি, বাজার গরম করতেই দেওয়াল লিখেছে, ভোটের কোনো প্রভাব পড়বে না। পালটা দাবি তৃণমূল নেতা ভোলা গুহের। তিনি এও বলেন, নির্বাচনের দিন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করবে দল। প্রসঙ্গত ২০১৫-র মহকুমা পরিষদ নির্বাচনে তৃণমূলকে পেছনে ফেলে বোর্ড দখল করেছিল বামেরা। কংগ্রেসও ভাল ফল করেছিল। পরবর্তীতে দল ভাঙিয়ে একাধিক পঞ্চায়েত ও পঞ্চায়েত সমিতি দখল করে তৃণমূল। তবে মহকুমা পরিষদ অধরাই ছিল। এবারে পুরসভার পর মহকুমা পরিষদকে পাখির চোখ করে এগোচ্ছে তৃণমূল।

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: Election, North bengal news

পরবর্তী খবর