সাড়ে চার ঘন্টা নিজের চেম্বারে বন্দি শিলিগুড়ির মেয়র! নিতে পারেননি ইনস্যুলিন

সাড়ে চার ঘন্টা নিজের চেম্বারে বন্দি শিলিগুড়ির মেয়র! নিতে পারেননি ইনস্যুলিন

বার্ধক্য ভাতা, বিধবা ভাতা বকেয়া। বকেয়া আদায়ে তৃণমূলের ঘেরাও। কোনো বকেয়া নেই দাবী মেয়রের

  • Share this:

#শিলিগুড়ি :  কথা ছিল যোগ দেবেন ডেঙ্গি নিয়ে একটি সভায়। কিন্তু যাওয়া হল ন। টানা সাড়ে চার ঘণ্টা নিজের ঘরেই বন্দি শিলিগুড়ি পুরসভার মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। অভিযোগ, গত দেড় বছর বকেয়া বার্ধক্য় ভাতা। বকেয়ার তালিকায় আছে,  বিধবা ভাতা এবং প্রতিবন্ধী ভাতাও।

সেই বকেয়া আদায়ের দাবিতে মেয়রের চেম্বারের সামনে ধর্ণায় বসলেন ৩৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা।  টানা সাড়ে ৪ ঘন্টা ঘেরাও  মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। নেতৃত্বে ৩৭ নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর রঞ্জন শীলশর্মা।

অভিযোগ, তারস্বরে মাইক বাজিয়ে চলল বিক্ষোভ। চেম্বারেই বন্দি হয়ে রইলেন মেয়র! ডেঙ্গু নিয়ে একটি সভায় যোগও দিতে পারেননি। ফোন করেও যোগাযোগ করে উঠতে পারেননি পর্যটনমন্ত্রীর সঙ্গে।

কেন ঘেরাও ? পুরসভার দাবি, আলোচনায় বসার আহ্বানও জানান মেয়র। কিন্তু সাড়া দেননি তৃণমূল কাউন্সিলর। আর তাই এই ধরনের আন্দোলনকে 'অভব্য' বলে আক্রমণ মেয়রের। ঘেরাওয়ের জেরে ইনস্যুলিন নিতে পারেননি সময়ে। দুপুরের খাবারও নিতে না পেরে রেগে যান। তাঁর দাবি, তৃণমূলের আমলে বকেয়া পড়েছিল। সব মিটিয়ে দেওয়া হচ্ছে ধাপে ধাপে। প্রতিমাসে দুটো মাসের ভাতা দেওয়া হচ্ছে। এমনকী,  ভাতার অঙ্কও বাড়ানো হয়েছে।

ভোটের আগে নিজের দলের কাছে ভাল সাজতেই  এই ধরনের আন্দোলন বলে কটাক্ষ মেয়রের। পুর ভোটের আগে রাজনৈতিক ফায়দা তুলতেই এই বিক্ষোভ বলে তাঁর অভিযোগ। যদিও বিরোধী দলনেতা রঞ্জন সরকার পালটা বলেন, 'দেড় বছর ধরে বকেয়া। অসুবিধায় আছেন বয়স্ক উপভোক্তারা। আর তা আদায়ে এদিনের এই বিক্ষোভ।  শহরবাসী পরিষেবা পাচ্ছে না। আর উনি দেশ, বিদেশ ঘুরে বেড়াচ্ছেন'।

মেয়রকে পালাতে দেওয়া হবে না। প্রতিটি ওয়ার্ড থেকেই বকেয়া ভাতা আদায়ে আন্দোলন, ঘেরাও হবে বলে হুঁশিয়ারি তৃণমূলের। পুরভোটের আগে এই ইস্যুকে তুলে ধরতে মরিয়া তৃণমূল। যদিও একে গুরুত্ব দিতে নারাজ মেয়রের। তাঁর দাবি, রাজ্য অর্থ দেয়নি। পুরসভা নিজেই বকেয়া ভাতা মেটাচ্ছে। তারপরও কেন লোক দেখানো আন্দোলন ?  প্রশ্ন মেয়রের।

পার্থপ্রতিম সরকার

First published: February 10, 2020, 7:21 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर