পুজোয় চলুন নিম্বু উপজাতির গ্রামে, চুপচাপ চারদিন বুংকুলুঙ্গে

পুজোয় চলুন নিম্বু উপজাতির গ্রামে, চুপচাপ চারদিন বুংকুলুঙ্গে

নির্জনতা যখন উপহার...নতুন যখন স্বপ্ন....মন মজে তখন বুঙ্কুলুঙ্গে। শহর ছেড়ে নিম্বু উপজাতির গ্রামে পুজোর চুপচাপ চারদিন।

  • Share this:

#বুংকুলুঙ্গ: চেনা শহর পুজোয় হঠাৎ অচেনা। জনঅরণ্য ছেড়ে নিরিবিলি খোঁজে মন। পুজোয় নিজের সঙ্গে কাটাতে চান চুপচাপ চারদিন? আমরা দিচ্ছি দিকশূন্যপুরের হদিশ।

নির্জনতা যখন উপহার...নতুন যখন স্বপ্ন....মন মজে তখন বুংকুলুঙ্গে। শহর ছেড়ে নিম্বু উপজাতির গ্রামে পুজোর চুপচাপ চারদিন। নিউ জলপাইগুড়ি থেকে দুঘণ্টার পথ পেরিয়ে প্রায় অনাঘ্রাতা পাহাড়ি গ্রাম।

পাহাড়-জঙ্গল-চাবাগানের ঠাস বুনোট। দূরে পাহাড়ের গায়ে মহানন্দা ওয়াইল্ড লাইফ স্যাংচুয়ারির হাতছানি। স্থানীয়দের বিশ্বাস, বুংকুলুঙ্গের হলুদ নাকি সর্দির অব্যর্থ ওষুধ।

শিলিগুড়ি থেকে দুধিয়া ছুয়ে তিরিশ কিলোমিটার দূরে পাহাড়ী গ্রামে থাকার ব্যবস্থা বুংকুলুঙ্গ জঙ্গল ক্যাম্পে। রয়েছে দুটি কটেজ। আছে তাঁবু-ও। পাশ দিয়ে বইছে বালাসন। হর্ন বিল, ব্ল্যাক বাজা, উডকিপারের ঠুকঠাক শব্দে অচেনা দুপুর, অজানা বিকেল-যাপন। চোখ জুড়ানো রঙিন প্রজাপতি। দেখা হতে পারে লেপার্ড, বন্য শূকর, পাহাড়ী ময়না, বন্য বিড়ালের সঙ্গে।

ক্যাম্পে রয়েছে অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টসের ব্যবস্থা। ব্রিটিশদের আমলের ট্রেক রুটে গা-ছমছমে অভিজ্ঞতা। স্থানীয় চা-বাগানের টি-টেস্টিং। সন্ধে নামলেই লিম্বু জনজাতির ছাবরুং নাচ।

Loading...

ক্যাম্পে ভেষজ শাক-সবজির চাষ। পাতে দেশী মুরগি, স্থানীয় নদীয়ালি মাছ, পাহাড়ী শাক। ক্যাম্পে থাকা-খাওয়ার খরচ মাথাপিছু আঠারশো টাকা। ইচ্ছে হলে ঘুরে আসা যায় মিরিক কিংবা কার্শিয়ং থেকে।

- এনজেপি বা বাগডোগরা বিমানবন্দর থেকে গাড়িতে বুংকুলুঙ্গ

--ক্যাম্পের গাড়িতে পিকআপ

--যোগাযোগ--৮০০১৬৪৯২১০/ ৯৭৪৯০৫৯৬৮১

First published: 10:48:03 AM Oct 03, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर