corona virus btn
corona virus btn
Loading

সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই ফি মকুবের দাবিতে আন্দোলনে SFI

সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই ফি মকুবের দাবিতে আন্দোলনে SFI

আনুষাঙ্গিক কোনও ফি দিতে রাজি নন অভিভাবকেরা। অর্থাৎ কম্পিউটার ফি, বিদ্যুতের ফি, খেলাধুলো ফি, টিচার্স ডে ফি সহ আরও বেশ কিছু ফি। এমনকী গাড়ি ভাড়াতেও "না"। শুধু টিউশন ফি দিতে রাজি। সেই ফিও অর্ধেকের বেশি নয়।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: লকডাউনের জের। এপ্রিল মাস থেকে খোলেনি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের দরজা। সরকারি এবং বেসরকারি সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানই বন্ধ। জুলাইয়েও স্কুল, কলেজ খুলবে না। ইতিমধ্যেই ঘোষণা করে দিয়েছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। অনলাইনে ক্লাসই এখন ভরসা ছাত্র, ছাত্রীদের কাছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও ফি জমা দেওয়ার চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে একাধিক বেসরকারি ইংরেজি মাধ্যম স্কুলের বিরুদ্ধে। তা নিয়ে রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলেই বিক্ষোভ দেখাচ্ছে অভিভাবকেরা।

আনুষাঙ্গিক কোনও ফি দিতে রাজি নন অভিভাবকেরা। অর্থাৎ কম্পিউটার ফি, বিদ্যুতের ফি, খেলাধুলো ফি, টিচার্স ডে ফি সহ আরও বেশ কিছু ফি। এমনকী গাড়ি ভাড়াতেও "না"। শুধু টিউশন ফি দিতে রাজি। সেই ফিও অর্ধেকের বেশি নয়। আবার কোনও কোনও অভিভাবকেরা তাও দিতে রাজী নয়। কেননা লকডাউনের প্রভাব পড়েছে তাদের আয়ের প্রতিষ্ঠানে। ব্যবসায়ীদের অবস্থাও অত্যন্ত সংকটজনক। এই অবস্থায় ফি জমা দেওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু অনড় একাধিক স্কুল কর্তৃপক্ষ। বার বার চাপ দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠছে।

সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফি মকুবের দাবিতে সরব হয়েছে এস এফ আই। তাদেরও দাবি, পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ফি নয়। এই দাবিতেই বৃহস্পতিবার শিলিগুড়ি মহকুমা শাসকের দফতরের সামনে বিক্ষোভ দেখায় এই ছাত্র সংগঠন। সংগঠনের জেলা সভাপতি সাগর শর্মা জানান, 'করোনা আবহে ফি ছাড় দিতে হবে। এই মূহূর্তে অনেক অভিভাবকের পক্ষেই তা দেওয়া সম্ভব নয়। বৃহস্পতিবার মহকুমা শাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা করা হয়েছে। শুক্রবার জেলাজুড়ে আন্দোলন চলবে। প্রতিটি ব্লকে বিক্ষোভ এবং স্মারকলিপি জমা করা হবে। রাজ্য সরকারকে এনিয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত জানাতে হবে। যতদিন না পর্যন্ত ফি মকুব করা হচ্ছে এস এফ আই ছাত্র, ছাত্রীদের স্বার্থে পথে নেমে আন্দোলন চালিয়ে যাবে'। এদিন গোলমালের আশঙ্কায় মহকুমা শাসকের দফতরের সামনে মোতায়েন করা হয় প্রচুর পুলিশ।

Published by: Pooja Basu
First published: July 2, 2020, 5:59 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर