• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • Kali Puja 2021: এ বারও ভক্তদের প্রবেশে "না", ভার্চুয়ালি হবে অঞ্জলি, সেবকেশ্বরী কালী মন্দিরে পুজো হবে ভক্তশূন্য

Kali Puja 2021: এ বারও ভক্তদের প্রবেশে "না", ভার্চুয়ালি হবে অঞ্জলি, সেবকেশ্বরী কালী মন্দিরে পুজো হবে ভক্তশূন্য

শিলিগুড়ি থেকে গ্যাংটক যাওয়ার পথে ৩১ নং জাতীয় সড়কের ধারেই সেবক পাহাড়ের কোলে সেবকেশ্বরী কালী মন্দির

শিলিগুড়ি থেকে গ্যাংটক যাওয়ার পথে ৩১ নং জাতীয় সড়কের ধারেই সেবক পাহাড়ের কোলে সেবকেশ্বরী কালী মন্দির

Kali Puja 2021: পুজা হবে তান্ত্রিক মতে। যেমনটা প্রতি বছর হয়ে থাকে। পুজা দেখা যাবে ভার্চুয়ালি। অঞ্জলিও হবে ভার্চুয়ালি। মায়ের ভোগ নিবেদন হবে। তবে ভোগ বিতরণ হবে না। করোনা সতর্কতা হিসেবেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

  • Share this:

শিলিগুড়ি: করোনার জন্যে এবারেও কালীপুজোয় (Kali Puja 2021) বন্ধ থাকছে সেবক পাহাড়ের কোলে সেবকেশ্বরী কালী মন্দিরের (Sevokeshwari Kali Temple) দরজা। ভক্তদের জন্যে "না" নির্দেশিকা জারি করেছে মন্দির কর্তৃপক্ষ। ৪ থেকে ৬ নভেম্বর অর্থাৎ পুজার সময়ে বন্ধ থাকছে মন্দির। তবে পুজা হবে তান্ত্রিক মতে। যেমনটা প্রতি বছর হয়ে থাকে। পুজা দেখা যাবে ভার্চুয়ালি। অঞ্জলিও হবে ভার্চুয়ালি। মায়ের ভোগ নিবেদন হবে। তবে ভোগ বিতরণ হবে না। করোনা সতর্কতা হিসেবেই এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : বাগডোগরার বেঙডুবি সেনা ছাউনিতেও মর্যাদার সঙ্গে রাষ্ট্রীয় একতা দিবস পালন!

মন্দিরের পুরোহিত নন্দকিশোর গোস্বামী জানান, একটি মোবাইল নম্বর দেওয়া হবে। ওই নম্বরে লাইভে পুজো হবে। সেখানেই ভার্চুয়ালি অঞ্জলি দেওয়া যাবে। বাড়িতে মায়ের ছবির সামনেই অঞ্জলি দেওয়া যাবে। তবে এবারে বলিও দেওয়া হবে। সবজি বলি দেওয়া হবে। তবে পশু বলি দেওয়া হবে না। যজ্ঞও হবে রীতি মেনে। কোনও ভক্তই পুজোর সময়ে মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন না।

আরও পড়ুন : সূত্রধর গনিখান চৌধুরী, মালদহে রাজনৈতিক সৌজন্যের নয়া নজির

শিলিগুড়ি থেকে গ্যাংটক যাওয়ার পথে ৩১ নং জাতীয় সড়কের ধারেই সেবক পাহাড়ের কোলে সেবকেশ্বরী কালী মন্দির। পাহাড় কেটে তৈরি করা হয়েছে মায়ের মন্দির। ভিন রাজ্য থেকে ভক্তরা পুজোর দিন ভিড় জমাতেন এখানে। পর্যটকরা পাহাড়ে বেড়ানোর ফাঁকেই মন্দিরে পুজো দিয়ে যান ভক্তরা। পাহাড়ের পাথর কেটে তৈরি করা হয়েছে মন্দির।

আরও পড়ুন : সহবাস করে বিয়ে না করার অভিযোগ, শিক্ষকের বাড়ির সামনে ধরনায় মহিলা সিভিক ভলেন্টিয়ার

কথিত, ১৯৫২ সালে পাহাড়ের গায়ে পঞ্চমুণ্ডি আসন, ত্রিশূল এবং বেদী দেখতে পান এক সাধক। তার পর থেকেই কালী পুজার শুরু। তার আগে কখনও পুজো হয়েছে কি না, তা অবশ্য স্পষ্ট নয় কর্তৃপক্ষের কাছে। ৪ বা ৫টে নয়, ১০৭ ধাপ চরাই উতরাই সিঁড়ি পার করে প্রবেশ করতে হয় সেবকেশ্বরী কালী মন্দিরে । বহু বার সেবক পাহাড়ে ধস নামলেও তা একবারও আঁচড় কাটতে পারেনি মায়ের মন্দিরে। এও কথিত, সেবকেশ্বরী  মা কালী জাগ্রত। আর তাই ছুটে আসেন ভক্তরা। পুজোর আগে এখন মন্দিরে সাজ সাজ রব। চলছে শেষ মূহূর্তের ব্যস্ততা।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: