corona virus btn
corona virus btn
Loading

টানা বৃষ্টিতে ফুঁসছে বেহুলা নদী! প্লাবিত একাধিক এলাকা, গাজোলে মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন ৩টি গ্রাম

টানা বৃষ্টিতে ফুঁসছে বেহুলা নদী! প্লাবিত একাধিক এলাকা, গাজোলে মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন ৩টি গ্রাম

টানা বৃষ্টিতে ফুঁসছে বেহুলা নদী। নদীর জল বেড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ ও রাস্তা, প্লাবিত একাধিক এলাকা, বিচ্ছিন্ন ৩টি গ্রাম। এলাকা জলমগ্ন হওয়ায় সমস্যায় ৪০০ পরিবার

  • Share this:

#মালদহ :  টানা বৃষ্টিতে ফুঁসছে বেহুলা নদী। নদীর জল বেড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধ ও রাস্তা, প্লাবিত একাধিক এলাকা, বিচ্ছিন্ন ৩টি গ্রাম। এলাকা জলমগ্ন হওয়ায় সমস্যায় ৪০০ পরিবার! ব্যাপক ক্ষতি ধান, পাট, ভুট্টা ও সবজি চাষে!

আচমকা নদীর জল বেড়ে ক্ষতিগ্রস্ত বেহুলা নদীর বাঁধ ও রাস্তা । ফলে মালদহের গাজোলে মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে ৩টি গ্রাম। বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত। চরম সমস্যায় অন্তত ৪০০ পরিবার। কয়েকশো বিঘা জমির ফসল জলের তলায়। দু'দিন ধরে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। বাধ্য হয়ে, ঝুঁকি নিয়ে নৌকায় চেপেই চলছে যাতায়াত । এ'বছর আগাম বর্ষা নামাতেই বিপত্তি, বলছে স্থানীয় প্রশাসন।

মালদহের গাজলের করকচ গ্রাম পঞ্চায়েতের কাঞ্চননগর, বিনোদপুর এবং শ্রীকৃষ্ণপুর প্লাবিত । কাঞ্চননগর এলাকায় এবছর  স্লুইস গেট গেট তৈরির কাজ করছিল সেচ দফতর। এলাকা জলমগ্ন হওয়ায় সেই কাজও বন্ধ। কৃষিপ্রধান ওই এলাকায় ধান, পাট, ভুট্টা ও সবজি চাষের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে । স্থানীয়দের অভিযোগ, গত দু'দিন এলাকা বিচ্ছিন্ন হয়ে থাকলেও কার্যত কোন উদ্যোগই নেয়নি প্রশাসন । শুধু তাই নয়, দৈনন্দিন প্রয়োজনে হাট-বাজার, নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনাকাটা পর্যন্ত করতে পারছেন না স্থানিয় বাসিন্দারা। ফলে কার্যত অর্ধাহারে বা অনাহারে দিন কাটছে। গাজোল পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি রেজিনা পারভিন জানিয়েছেন , '' ওই এলাকায় কৃষি দফতর ক্ষয়ক্ষতির রিপোর্ট তৈরি করবে। যোগাযোগের জন্য অস্থায়ীভাবে কোন ব্যবস্থা করার চেষ্টা হবে। ব্লক প্রশাসনের মাধ্যমে রাজ্যের কাছে ক্ষয়ক্ষতির রিপোর্ট পাঠিয়ে সাহায্য চাওয়া হবে।''

SEBAK DEB SARMA

Published by: Rukmini Mazumder
First published: July 7, 2020, 12:33 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर