Home /News /north-bengal /
হাতিই সম্পদ উত্তরবঙ্গের! হাতি সহ অন্য বন্য জন্তুকে বাঁচানোর আর্জি বিশ্ব হস্তি দিবসে

হাতিই সম্পদ উত্তরবঙ্গের! হাতি সহ অন্য বন্য জন্তুকে বাঁচানোর আর্জি বিশ্ব হস্তি দিবসে

বন্ধ উত্তরের চাপরামারি অভয়ারণ্য থেকে গরুমারা ন্যাশনাল পার্ক।

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: আজ বিশ্ব হস্তি দিবস। কোভিডের জন্য ভিড় এড়াতে পর্যটকদের জন্য বন্ধ বন, জঙ্গল। বেঙ্গল সাফারি পার্ক থেকে দার্জিলিংয়ের হিমালয়ান পদ্মজা নাইডু চিড়িয়াখানা। বন্ধ উত্তরের চাপরামারি অভয়ারণ্য থেকে গরুমারা ন্যাশনাল পার্ক। তালিকায় জলদাপাড়া অভয়ারণ্য থেকে মহানন্দা অভয়ারণ্য। বক্সা টাইগার রিজার্ভ থেকে নেওড়া জঙ্গল। আর তাই বিশ্ব হস্তি দিবসে উত্তরে সেভাবে দিনটি সাড়ম্বরে পালিত হল না। প্রতিবছরই ঘটা করে অনুষ্ঠান করা হয়ে থাকে। এবারে বাধ সাধলো সেই মারণ করোনা ভাইরাস। উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জঙ্গলে কুনকি হাতিদের মালা পড়িয়ে, কেক কেটে অনুষ্ঠান পালিত হত। স্কুল পড়ুয়াদের নিয়েও নানা প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান করা হত। এবারে সবই ফিকে! তবে চুপ করে বসে থাকেনি সোসাইটি ফর নেচার এণ্ড এনিম্যাল প্রোটেকশনের সদস্যরা। সংগঠনের প্রতিষ্ঠা দিবসেই আজ অন্যভাবে পালন করল বিশ্ব হস্তি দিবসও। আজই তারা প্রকাশিত করলো দ্বিমাসিকই ম্যাগাজিন। তার নাম ‘জংলি’! আজ শিলিগুড়ি জার্নালিস্ট ক্লাবে এই ম্যাগাজিনের আনুষ্ঠানিক উন্মোচন করা হয়।

উত্তরের বন, জঙ্গল, পরিবেশ এবং বন্য জন্তুদের নিয়ে একাধিক লেখা রয়েছে ম্যাগাজিনে। উত্তরের প্রকৃতিকে বাঁচানোর ডাক দেওয়া হয়েছে সংগঠনের পক্ষ থেকে। বাংলা, ইংরেজি, হিন্দি এবং নেপালি ভাষায় একাধিক লেখা সম্বলিতই ম্যাগাজিন প্রতি দু'মাস অন্তর প্রকাশিত করা হবে। উত্তরবঙ্গে মানুষ ও বন্যপ্রাণের সংহাত ঠেকাতে কি করণীয় তা নিজের কলমে তুলে ধরেছেন সংগঠনের সভাপতি কৌস্তভ চৌধুরী। সচেতনতা বাড়াতে হবে জঙ্গল লাগোয়া বস্তি এলাকায়। অনেক সময়েই রসদের সন্ধানে জঙ্গলের বেড়াজাল টপকে বন্য প্রাণীরা চলে আসে লোকালয়ে। বন্য জন্তুদের না পিটিয়ে, তাড়া না করেও যে জঙ্গলে ফেরানো যায়, এই ধরনের সচেতনতামূলক প্রচারই চালিয়ে আসছে তারা। সবুজ আর বন্য জন্তু উত্তরের সম্পদ। তাকে বাঁচিয়ে রাখার দায়িত্বও এখানকার বাসিন্দাদের। উত্তরের জঙ্গলে হাতি দাপিয়ে বেড়ায়। ফি বছরেই খাবারের সন্ধানে বাংলা-অসম সীমান্তের সঙ্কোশ নদী থেকে হাতির পাল চলে আসে ভারত-নেপাল সীমান্তের মেচি নদী পর্যন্ত এলাকায়। অনেক সময়েই ডুয়ার্সের জঙ্গল ঘেঁষা রেল ট্র‍্যাকে ট্রেনের ধাক্কায় হাতি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এমনকী রয়েল বেঙ্গল টাইগারেরও মৃত্যু হয়েছে। এই ধরনের ঘটনা কিভাবে এড়ানো যাবে, তারও প্রচার চালিয়ে আসছে এই সংগঠন। লোকালয়ে হাতির পাল চলে এলে টের পাওয়া যাবে এক বিশেষ অ্যালার্মের শব্দে। সেই অ্যালার্মও তৈরি করেছে সংগঠনের সদস্যরা। বিশ্ব হস্তি দিবসে পরিবেশ বাঁচানোর ডাক দিয়েছে তারা।

Published by:Akash Misra
First published:

Tags: Elephant, North Bengal

পরবর্তী খবর