পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম, প্রাক্তন গুরু অশোকের বাড়ি গিয়ে আশীর্বাদ নিয়ে এলেন শঙ্কর

অশোকের বাড়িতে শঙ্কর৷

এবারের বিধানসভা নির্বাচনের আগে সিপিএম ছেড়ে বিজেপি-তে যোগ দেন একদা অশোকবাবুর ছায়াসঙ্গী শঙ্কর৷

  • Share this:

#শিলিগুড়ি: ভোটে পরাজিত গুরুর বাড়িতে জয়ী শিষ্য৷ রাজনীতিতে এই সৌজন্যের ছবিই দেখল শিলিগুড়ি৷ এ দিন বিকেলে শিলিগুড়ির পরাজিত সিপিএম প্রার্থী অশোক ভট্টাচার্যের বাড়িতে হাজির হন সদ্য নির্বাচিত বিজেপি বিধায়ক শঙ্কর ঘোষ৷ অশোকবাবুর পায়ে হাত দিয়ে প্রণাম করেনতিনি৷ বেশ কিছুক্ষণ কথা হয় দু' জনের মধ্যে৷

এবারের বিধানসভা নির্বাচনের আগে সিপিএম ছেড়ে বিজেপি-তে যোগ দেন একদা অশোকবাবুর ছায়াসঙ্গী শঙ্কর৷ নির্বাচনে অবশ্য জয়ী হন শঙ্করই৷ বিশ্রী হারের মুখ দেখতে হয় অশোক ভট্টাচার্যকে৷ অভিমানে আর ভোটে না দাঁড়ানোর কথাও জানান অশোক বাবু৷ শিলিগুড়ির বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর পদ থেকেও সরে দাঁড়াতে চেয়েছেন তিনি৷

এ দিন শঙ্কর ঘোষের আসার খবর পেয়ে নিজেই দরজা খুলে দেন অশোক ভট্টাচার্য৷ ভিতরে ঢুকেই অশোকবাবুকে প্রণাম করে আশীর্বাদ চেয়ে নেন শঙ্কর৷ দুই নেতার মধ্যে করোনা সহ বেশ কিছু বিষয় নিয়ে কিছুক্ষণ কথা হয়৷ পরে বিজেপি বিধায়ক বলেন, ২০১১ সালের পর থেকে উনি আমার অভিভাবকের মতো ছিলেন৷ ওনার থেকে অনেক কিছু কাজ করতে গিয়ে শিখেছি৷ সেই শিক্ষা এবং কাজ করতে গিয়ে যে অভিজ্ঞতা হয়েছে সেগুলি দিয়েই শিলিগুড়ির মানুষের জন্য কাজ করার চেষ্টা করব৷

অশোক ভট্টাচার্য বলেন, 'ও নির্বাচনে জিতেছে, তার উপরে ছোট থেকে আমি চিনি৷ বা়ড়িতে এলে তার সঙ্গে দেখা তো করতেই হবে৷ আমি তো ওকেই আগেই বলেছি, ওর কাজে যাতে সফল হয় তার জন্য আমার শুভেচ্ছা থাকবে৷ আর শিলিগুড়িতে এই রাজনৈতিক সৌজন্যতা এখনও আছে৷ সেই কারণ বোধ হয় গোটা রাজ্যে একমাত্র এখানেই কোনও দল কারও বিরুদ্ধে থানায় একটা অভিযোগ জানায়নি৷' তবে কিছুটা অভিমানের সুরেই এর পর অশোকবাবু বলেন, 'আমি তো পরাজিত৷ শোচনীয় ভাবে হার হয়েছে৷ মানুষ আমাকে প্রত্যাখ্যান করেছে৷ ফলে আমি আর কী পরামর্শ দেব?'

২০১৬ সালেও শিলিগুড়িতে নিজের গড় ধরে রাখতে পেরেছিলেন অশোকবাবু৷ কিন্তু এবারের হারে রীতিমতো বিপর্যস্ত তিনি৷ তার মধ্যেও প্রাক্তন অনুগামীর বাড়ি এসে তাঁর প্রতি রাজনৈতিক সৌজন্যে হয়তো প্রবীণ সিপিএম নেতার ক্ষতে কিছুটা প্রলেপ পড়বে৷

Partha Pratim Sarkar
Published by:Debamoy Ghosh
First published: