মরশুমের প্রথম তুষারপাত, বরফ-চাদরে গা ঢাকল সান্দাকফু

মরশুমের প্রথম তুষারপাত, বরফ-চাদরে গা ঢাকল সান্দাকফু

তুষারপাতের জেরে সান্দাকফুতে ফুট তিনেক বরফ জমে গিয়েছে

  • Share this:

PARTHA PRATIM SARKAR

দার্জিলিং: ফের জমজমাট সান্দাকফু। উচ্ছ্বসিত পর্যটকেরা। মরশুমের প্রথম তুষারপাত হল সান্দাকফুতে। শুক্রবার বিকেল তখন সাড়ে ৪টে। এমনিতেই পাহাড়ে সন্ধ্যে ঘনিয়ে আসছিল। পর্যটকেরা উপভোগ করছিল প্রাকৃতিক রোমাঞ্চ। ঠিক ওই সময় শুরু হয় তুষারপাত। মূহূর্তেই পর্যটক থেকে স্থানীয় বাসিন্দারা মেতে ওঠেন অনাবিল আনন্দে। ভারী তুষারপাতের জেরে সান্দাকফুতে ফুট তিনেক বরফ জমে গিয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে খবর।

গত কয়েক বছর ধরেই সান্দাকফু'তে তুষারপাত হয়ছে। এবারে ডিসেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহেই তুষারপাত। শুরুতে হালকা তুষারপাত হলেও ধীরে ধীরে তার তেজ বাড়তে থাকে। আর বরফ পড়তেই হোটেলের বাইরে বেড়িয়ে আসে পর্যটকেরা। স্থানীয় প্রশাসিন সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন ৪০ জনের মতো পর্যটক ছিল সান্দাকফু'তে। বরফ পড়ার আনন্দে মাতোয়ারা পর্যটকেরা। রীতিমতো খেলতে শুরু করেছে তারা। সঙ্গে সেল্ফি তোলার হিড়িক।

এক ধাক্কায় তাপমাত্রাও অনেকটাই নামিয়ে দিয়েছে তুষারপাত। তাপমাত্রা নেমে আসে এক অঙ্কে। সান্দাকফু'র তাপমাত্রা দাঁড়িয়েছে ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। দেখতে দেহতে গোটা পাহাড়ী গ্রাম দুধ সাদায় পরিণত হয়। যেদিকেই চোখ যায়। শুধু সাদা বরফের চাদরে ঢাকা পাহাড়। যা মোবাইল ক্যামেরাই ফ্রেম বন্দী করতে পর্যটকদের ব্যস্ততা নজরে পড়েছে। ডিসেম্বরের মাঝামাঝিতে বরফ পড়ায় খুশী স্থানীয় পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িতরাও। এর জেরে ভিড় বাড়বে সান্দাকফু'তে।

এদিন তাপমাত্রা রাতের দিকে আরো নামার পূর্বাভাস আবহাওয়া দপ্তরের। চলতি মাসেই উত্তর সিকিমে তুষারপাত হয়েছে। গত ৩রা ডিসেম্বর লাচেনে তুষারপাত হয়। গতবছরে ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে তুষারপাত হয়েছিল দার্জিলিংয়ে। রবিবার থেকেই তাপমাত্রা নামার পূর্বাভাস দিয়েছিল আবহাওয়া দপ্তর। পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ও রাজস্থানের ঘূর্ণাবর্ত ক্রমশ উত্তর-পূর্বে সরে আসছে। তার জেরেই ঠাণ্ডা বাড়বে উত্তরে।

First published: 02:24:51 PM Dec 14, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर